‘অসামাজিক কাজে জড়িত নই’

 

 

‘আমি কখনও অনৈতিক কিংবা অসামাজিক কোন কাজে জড়িত নই। ওই মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে ফটোশপে কাজ করে অশ্লীল ছবি আপলোড দিচ্ছে।’ -এ কথা জানিয়েছেন পুলিশের হাতে আটকের পর হাজতবাসকারী কণ্ঠশিল্পী কাকলী দে এ্যানী। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে প্রতিপক্ষ মহল তার বিরুদ্ধে নানা রকম অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। ওই মহল তাকে সমাজে হেয়প্রতিপন্ন করতে এবং তার ক্যারিয়ার নষ্ট করতে ষড়যন্ত্র করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। গতকাল সিলেট প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে কণ্ঠশিল্পী কাকলী দে এ অভিযোগ করেছেন
। লিখিত বক্তব্যে কাকলী দে বলেন, গত ২৭শে ফেব্রুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকের অনলাইন সংস্করণে আমার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। যা দেখে আমি হতবাক ও বিস্মিত হয়েছি। প্রকৃত অর্থে ২৬শে ফেব্রুয়ারি রাতে আমি বিমানবন্দর এলাকায় একটি গানের অনুষ্ঠানে অংশ নিই। একজন শিল্পী হিসেবে সহকর্মী শিল্পীদের সঙ্গে ওই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ফেরার পথে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। আমার সঙ্গে গাড়িতে ছিলেন আরও কয়েকজন শিল্পী ও যন্ত্রবাধক। লাক্কাতুরা এলাকায় আসার পর পুলিশ আমাদের গাড়িকে সিগন্যাল দিলে চালক গাড়ি থামান। এ সময় পুলিশের সঙ্গে আমাদের একজন কণ্ঠশিল্পীর বাদানুবাদ হলে পুলিশ আমাদের গাড়িকে আটক করে সবাইকে থানায় নিয়ে যায়। পরে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হলে এয়ারপের্ট থানা পুলিশ আমাদের ছেড়ে দেয়। অথচ এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি জাতীয় দৈনিকের অনলাইন সংস্করণে আমাকে ভিন্ন আঙ্গিকে তুলে ধরা হয়েছে। যা দেখে আমি ব্যথিত হয়েছি। তিনি বলেন, আমি একজন শিল্পী। আমি নিয়মিত বাংলাদেশ বেতার, টেলিভিশনসহ বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে গান গেয়ে থাকি। সিলেটের সংগীতাঙ্গনের মানুষ আমাকে চেনেন এবং জানেন। আমি কখনও অনৈতিক কিংবা অসামাজিক কোন কাজে জড়িত নই। ওই কুচক্রী মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে ফটোশপে কাজ করে অশ্লীল ছবি আপলোড দিচ্ছে। তারা আমার মানসম্মান ক্ষুণ্ন করতে এ ধরনের চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে কাকলী দে ওই কুচক্রী মহলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সিলেটের প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট মহলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

gpAdvert

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন