কাঠের ব্রীজ মরণ ফাঁদ

 

সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও,Khutakhali Brige
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী জয়নগর পাড়া সড়কের কাঠের ব্রীজ মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। দীর্ঘ বছর ধরে অবহেলিত ও জরাজীর্ণ এ কাঠের ব্রীজটি দিয়ে চলাচলরত লোকজন পড়েছেন চরম দূর্ভোগে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ দেখেও না দেখার ভান করে আছেন এমনতর অভিযোগ এলাকাবাসির। জনবহুল এ সড়কের কাঠের ব্রীজ পার হতে গিয়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোটখাট দূর্ঘটনা। স্থানীয়রা বর্ষার আগে দ্রুত ব্রীজটি পুন:মেরামতের উদ্যোগ নিতে চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
সরেজমিন পরিদর্শণ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড তথা পূর্বপাড়া জয়নগর পাড়া সংযোগ ব্রীজটি দীর্ঘদিন ধরে অকোজো হয়ে পড়ে রয়েছে। এলাকাবাসির সহায়তায় এ ব্রীজটি কয়েক দফে মেরামত করা হলেও ব্যাপক লোক চলাচলের কারণে এখন জীর্নশিণ ও সম্পুর্ণ চলাচল অনুপযোগী। বিষয়টি স্থানীয় বাসিন্দারা ওয়ার্ড মেম্বারকে জানানোর পরও অদ্যবদি মেরামতের কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এদিকে প্রতিদিন চলাচলরত স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসাগামী ছাত্র-ছাত্রীরা পড়েছে চরম বেকায়দায়। বর্তমানে ব্রীজটি দিয়ে যান চলাচলতো দুরের কথা হেঁটে চলায় দুষ্কর হয়ে পড়েছে।
স্থানীয় আবু তাহের, আমিনুর রহমান ও মোহাম্মদ কালু জানান ৬ নং ওয়ার্ডের একমাত্র অবহেলিত জয়নগর পাড়া সড়ক ও ব্রীজের বেহাল দশায় এ গ্রামের প্রায় অর্ধ শতাধিক পরিবার চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বিশেষ করে কোন রোগি নিয়ে স্বাভাবিক ভাবে এ ব্রীজ পার হওয়া যায় না। প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে পার হচ্ছেন এ গ্রামের বাসিন্দারা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্থানীয় পরিষদ বিগত কয়েক বছর ধরে এ ব্রীজটি উন্নয়নে কোন বরাদ্ধ দেয়নি। যার কারনে এলাকাবাসি স্বেচ্ছাশ্রমে কয়েক দপে ব্রীজটি মেরামত করে চলাচল উপযোগী করেন। বর্তমানে ব্রীজের দৈন্যদশার কারনে নারী, পুরুষ ও শিশু ব্রীজের নিচ দিয়ে চলাচল করছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মো: আনোয়ার হোসেন ব্রীজের বেহাল দশার কথা স্বীকার করে জানান পরিষদের পক্ষ থেকে ব্রীজ নির্মানের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। তবে সড়ক উন্নয়নের কাজ করা হয়েছে।
চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আল্হাজ্ব জাফর আলম খোঁজ খবর নিয়ে জয়নগর পাড়ার ব্রীজ নির্মাণ করা হবে বলে আশ্বস্থ করেছেন।
ঈদগাঁওয়ে গাজাসহ মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার
সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও, কক্সবাজার- ২৩ এপ্রিল

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও থেকে ১০ কেজি গাজা সহ এক মাদক ব্যবসায়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ২৩ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পুলিশ এ অভিযান চালায়।
জানা যায়, কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের ইসলামাবাদ এলাকার মৃত জেবর মোল্লুক এর পুত্র গুরা মিয়া(৪৫) দীর্ঘদিন যাবত আন্ত-জেলায় হরেক রকম মাদকের পাশাপাশি মাদকদ্রব্য গাজা সরবরাহ দিয়ে আসছিলো। প্রতি বারের ন্যায় ২৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় ১০ কেজি গাজা সরবরাহ দেয়ার সময় কক্সবাজার সদর মডেল থানার এস.আই কামাল হোসেন অভিযান চালিয়ে হাতে নাতে আটক করে। এস.আই কামাল হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ক্রেতা সেজে কৌশলে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়েছে।
ঈদগাঁও ঈদগড় সড়কে অপহৃত ৩ ব্যক্তি উদ্ধার
সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও,

কক্সবাজারের ঈদগাঁও ঈদগড় সড়কের হিমছড়ি ঢালা হতে অপহৃত ৩ ব্যক্তি মুক্তিপণের বিনিময়ে এবং পুলিশের সাড়াশি অভিযানের ফলে অবশেষে উদ্ধার হয়েছে। প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, ২২ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদগড় হতে ২টি সিএনজি যোগে ঈদগাঁও যাওয়ার পথে হিমছড়ি ঢালায় পৌঁছলে আগে থেকেই উৎপেতে থাকা সশস্ত্র ডাকাতদল সিএনজিগুলোতে হামলা চালিয়ে গাড়ীতে থাকা বাইশারী রাঙ্গাঝিরি এলাকার মৃত গোলাম বারীর পুত্র সাবেক মেম্বার ফরিদুল আলম, ঈদগড় বড়বিল চরপাড়া এলাকার কাসেম আলীর পুত্র সিএনজি চালক সাইফুল ইসলাম ও একই এলাকার মৃত মোঃ সওদাগরের পুত্র নুরুল ইসলামকে অপহরণ করে গভীর জঙ্গলের ভিতরে নিয়ে যায় । পরে ঈদগাঁও আইসি মিনহাজ মাহমুদ ভুঁইয়ার নেতৃত্বে একদল পুলিশ, রামু থানার এসআই নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে রামু থানা পুলিশ, বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের আইসি আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে বাইশারী ফাঁড়ির পুলিশ এবং ঈদগড় পুলিশ ক্যাম্পের আইসি আবুল হাসেমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ও রামু থানা এএসআই আলমগীরসহ স্থানীয় লোকজন মিলে ভোমরিয়াঘোনা এলাকার রিজার্ভ বন জঙ্গলসহ আশপাশের আরো গভীর জঙ্গলে দিনব্যাপী অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানের ভিত্তিতে সন্ধ্যার দিকে অপহৃত ফরিদুল আলম মেম্বারকে ডাকাতদল মুক্তিপণের বিনিময়ে ছেড়ে দেয় বলে মেম্বার ফরিদুল আলম জানান। পরে উল্লেখিত পুলিশ সদস্যরা মেম্বার ফরিদুল আলমকে সাথে নিয়ে আবারো রাতের বেলায় তাদেরকে লুকিয়ে রাখা সম্ভাব্য স্থানে অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রাখায় রাত দেড়টার দিকে অপহৃত অপর ২ব্যক্তিকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। অপহৃত ব্যক্তিদেরকে উদ্ধারের পর রামু থানার এসআই আলমগীরের নেতৃত্বে ঈদগাঁও পুলিশ ফাঁড়িতে হস্তান্তর করা হয়।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন