জেলা বিএনপির বিবৃতি ‘বহিস্কৃত’ আলমগীর ফরিদ ও তার দোসররা বিএনপির কেউ নয়

 

fdfdsf

বার্তা পরিবেশক
‘নিজেদের বিএনপি নেতা পরিচয় দিয়ে সরকারি দলেরই এজেন্ডা বাস্তবায়নকারি একটি চক্র মহেশখালীতে বিএনপি রাজনীতিকে ধ্বংস করার অপচেষ্টা শুরু করেছে। তারা বিএনপির কেউ না হয়েও কিছু মানুষকে বিভ্রান্ত করে মহেশখালী উপজেলা বিএনপির নতুন নির্বাচিত কমিটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। এই চক্রেরই নেতৃত্ব দিচ্ছেন এক সময়ের সাংসদ ‘দলীয় বহিস্কৃত’ আলমগীর মুহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ, তারই ভাতিজা দুই সহোদর মো. হাবিব উল্লাহ ও জাহেদুল হক নাহিদ। এরা কোন এক সময় বিএনপির সাথে জড়িত থাকলেও সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত থাকায় দীর্ঘদিন আগেই তাদের দলের পদবি ও দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।’
আলমগীর মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ, মোহাম্মদ হাবিব উল্লাহ বিএনপির কেউ নয় জানিয়ে এক বিবৃতিতে কক্সবাজার জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইউসুফ বদরী জানিয়েছেন, এরা সরকারি দল আওয়ামী লীগের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্যই নিজেদের বিএনপি নেতা দাবি করে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে মহেশখালী উপজেলা বিএনপির বিরুদ্ধে চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছেন।
তাঁর মতে, উখিয়া-টেকনাফ আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি হলেন আলমগীর ফরিদের আপন ভায়রা আর মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক তাঁরই আপন ভাতিজা। পরিবারতন্ত্র বাস্তবায়নের জন্যই আলমগীর ফরিদ ও তার দোসররা আওয়ামী ছত্রছায়ায় বিএনপির বিরুদ্ধে চক্রান্তে লিপ্ত।
ইউসুফ বদরী দাবি করেন, ‘গণতান্ত্রিক উপায়ে মহেশখালী উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন শাখা বিএনপির তৃণমূল নেতা-কর্মী ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নির্বাচিত নেতাদের মতামতের মাধ্যমে দেশের প্রধান গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল বিএনপির মহেশখালী উপজেলা শাখার নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।’
তিনি মনে করেন, ‘দলের বাইরে কেউ কিংবা কোন চক্র এসে বিএনপির আভ্যন্তরীন বিষয় নিয়ে মাথা ঘামানোর কোন সুযোগ নাই। যারা বিএনপির মূল ¯্রােতের সাথে থেকে রাজনীতি করছেন তারা সকলেই দলটির গণতান্ত্রিক কর্মকান্ড বিষয়ে অবগত আছেন। তাদের মতামতের ভিত্তিতেই দলের কর্মকান্ড এবং নতুন কমিটি গঠন ও বাতিল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।’
ইউসুফ বদরী বিবৃতিতে জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম আরা স্বপ্নার মতামত উদ্বৃত করে বলেন, ‘যারা বিএনপির নাম দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি ও ভাংচুর এবং সভা-সমাবেশ করছেন তাদের সাথে বিএনপির সাথে কোন সম্পর্ক নেই। সাধারণ মানুষ ইচ্ছা করলেই ওই সকল দুস্কৃতিকারিদের প্রতিহত করতে পারেন। বিএনপি এ বিষয়ে কোন দায়-দায়িত্ব নেবে না।’
তিনি প্রশাসন ও আইন শৃংখলা রক্ষাকারি বাহিনীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘বিএনপি পরিচয়ে এই চক্রটি যেন কোন বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করতে না পারে তার জন্য সতর্ক থাকতে হবে।’
ওই চক্রটির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্যও প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান দলের দপ্তর সম্পাদক ইউসুফ বদরী।

সংবাদ প্রেরক
ইউসুফ বদরী
দপ্তর সম্পাদক, জেলা বিএনপি, কক্সবাজার।

 

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন