টেকনাফে অলি-গলিতে জনস্বার্থ বিরোধী স্পীডব্রেকার!

 

টেকনাফের প্রত্যন্ত এলাকায় অলি-গলিতে মাদক বিরোধী অভিযান ব্যাহত করতে চিহ্নিত অপরাধীরা কর্তৃক জনস্বার্থ বিরোধী স্পীডব্রেকার চরম ভোগান্তি সৃষ্টি করেছে। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।
সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম পাড়া, মাঝের পাড়া, দক্ষিণ পাড়া, হারিয়াখালী, নয়াপাড়া, কচুবনিয়া, কাটাঁবনিয়া, আলীর ডেইল, মুন্ডার ডেইল, চান্দলী পাড়া, লাফার ঘোনা, সিকদার পাড়া, মন্ডল পাড়া, সদর ইউনিয়নের মৌলভী পাড়া, নাজির পাড়া, চকবাজার, শীলবনিয়া পাড়া, নাইট্যং পাড়া, মহেশখালীয়া পাড়া-গোদার বিল, লেঙ্গুরবিল, হাবিব ছড়া, মিঠা পানির ছড়া, পৌর এলাকার কলেজ পাড়া, কুলাল পাড়া, বৃহত্তর জালিয়া পাড়া, কে.কে পাড়া, বৃহত্তর পল্লান পাড়া, ইসলামাবাদ, হ্নীলা ইউনিয়নের আলীখালী, রঙ্গিখালী, পশ্চিম সিকদার পাড়া, ফুলের ডেইল, পানখালী, রোজারঘোনা, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নাছরপাড়া, সাতঘরিয়া পাড়া, ঝিমংখালী, চাকমা পল্লী ও মনিরঘোনাসহ বিভিন্ন গ্রামীণ সড়কে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার মাদক ও মানব পাচার বিরোধী অভিযানকে ব্যাহত করতে এসব স্পীড ব্রেকার তৈরী করেছে। এই স্পীড ব্রেকারের ফলে প্রতিনিয়ত রিক্সা দূঘর্টনায় শিশুরা আহত হওয়ার ঘটনা ঘটছে। পশ্চিম সিকদার পাড়ার ইদ্রিস জানান,এই স্পীড ব্রেকারের ফলে ছেলে-মেয়েরা দূঘর্টনার শিকার হচ্ছে। নাইট্যং পাড়ায় রিক্সা চালক রহিম বলেন, এসব স্পীড ব্রেকারের ফলে রিক্সা চালাতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান,মূলত উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের চিহ্নিত অপরাধীরা পুলিশী অভিযান থেকে রেহাই পেতে কৌশলে এসব স্পীড ব্রেকার স্থাপন করেছে। অবিলম্বে এসব উঠিয়ে দেওয়া দরকার। এই বিষয়ে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক বলেন, ইতিমধ্যে উপজেলা প্রশাসন উপজেলার বিভিন্ন স্থানের স্পীড ব্রেকার গুড়িয়ে দিয়েছে। শীঘ্রই জনস্বার্থ বিরোধী অপরাপর স্পীড ব্রেকার সমুহ ভেঙ্গে দেওয়া হবে।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন