টেকনাফে ‘ডিবি পুলিশ’ অবরুদ্ধ, পরে উদ্ধার!

 


টেকনাফে জেলা গোয়েন্দা ডিবি পুলিশ অভিযান করতে গিয়ে স্থানীয় জনতার হাতে অবরুদ্ধ হয়েছেন। তিন ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। এ সময় অভিযানের নামে হয়রানির অভিযোগে ডিবি পুলিশ সদস্যদের মারধরের চেষ্টা চালায় বিক্ষুব্ধ জনতা। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বুধবার রাতে সাবরাং ইউনিয়নের সিকদার পাড়ায় জহির আহমদের বাড়িতে ইয়াবা মজুদ রয়েছে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে জেলা গোয়েন্দা ডিবি পুলিশের এসআই কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি টিম ওই এলকায় অভিযান পরিচালনা করে এসময় স্থানীয় লোকজন তাদের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে।একটি ইয়াবা পলিথিন ব্যাগ উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। পরে সেগুলো কেড়ে নেন স্থানীয়রা। ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুর হোসেন তার লোকজন নিয়ে ডিবি পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে তার কার্যালয়ে নিয়ে আসে। পরে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে ডিবি পুলিশ সদস্যদের থানায় নিয়ে আসে। তবে ইয়াবা অভিযানের নামে হয়রানির করতে ডিবি পুলিশ সদস্যরা সিকদার পাড়ার রাস্তা থেকে জহির আহমদের ছেলে কামাল হোসেনকে ধরার চেষ্টা চালায়। এসময় সে ডাকাত ডাকাত বলে সুর-চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে ডিবি পুলিশ সদস্যদের ঘিরে রাখে। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।
টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাইন উদ্দিন খান বলেন, অভিযানকালে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যদের অবরুদ্ধ করেছে এমন খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে থানা পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।
প্রসঙ্গত চলতি বছরের ২০ মে সদর ইউনিয়ের ইউপি সদস্য এনামুল হকের বাড়িতে ঢুকে তাকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে আসার সময় ডিবি পুলিশের উপর হামলা ও গাড়ি ভাংচুর করে বিক্ষুদ্ধ জনতা। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশ একটি মামলা রুজু করেছিল।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন