ট্রাকের ধাক্কায় আহত শিশুকে অনুদান দিলেন প্যানেল মেয়র কোহিনূর আক্তার

 


টেকনাফে ট্রাকের ধাক্কায় গুরুতর আহত ছেলেকে রাস্তা থেকে এনে হাসপাতাল ভর্তি করিয়ে চিকিৎসার জন্য ৫০০০ হাজার টাকা দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন টেকনাফ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সভাপতি পৌর প্যানেল মেয়র কোহিনূর আক্তার ও টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সেক্রেটারি নুরুল হোসাইন
সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন, টেকনাফ।

টেকনাফে ট্রাকের ধাক্কায় কয়েকদিন পূর্বে মিয়ানমার থেকে আগত জাদীমুরার বাসিন্দা ছৈয়দ আলমের ছেলে শফিউল আলম(১১) গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যুর সাথে পান্জা লড়ছে বলে জানা গেছে। ২৮ আগস্ট বিকাল ৩টায় জাদীমুরাস্থ টালের সামনে রাস্তায় ঘটনাটি ঘটে। পরে ছেলেটি অনেক্ষণ রাস্তায় পড়ে থাকার পর ভাগ্যক্রমে গাড়ীযোগে টেকনাফ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র কোহিনূর আক্তার কক্সবাজার থেকে গাড়ীযোগে আসার সময় ছেলেটিকে মাটিতে পড়ে থাকা অবস্থায় দেখলে গাড়ী থামিয়ে ছেলেটিকে তার গাড়ীতে তুলে নিয়ে এসে টেকনাফ হাসপাতালে ভর্তি করায়। তাছাড়া ছেলেটির খোজখবর নিয়ে তার বাবাকে চিকিৎসার জন্য ৫০০০ টাকা নিজ হাতে তুলে দেন। তার কিছুক্ষন পরে ছেলেটিকে হাসপাতালে দেখতে ছুটে যান টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সেক্রেটারি ও পৌর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সেক্রেটারি সাংবাদিক নুরুল হোসাইন। তিনিও ছেলেটির জন্য ৩০০০ হাজার টাকা তার বাবার হাতে তুলে দেন। যা টেকনাফের ইতিহাসে মানবতার এক দৃষ্টান্ত । এদিকে ছেলেটির অবস্থা গুরুতর হওয়ায় টেকনাফ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কক্সবাজার হাসপাতালে রেফার দেওয়া হয়েছে বলে জানায় টেকনাফ হাসপাতালের ডাঃ শোভন দাস।
অবশেষে কোহিনূর আক্তার ও নুরুল হোসাইনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, আমরা যতদিন বেচে আছি ততদিন সকল ভেদাভেদ ভুলে জীবন বাজি রেখে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাব ইনশাহআল্লাহ। তারই উদাহারণস্বরুপ আজ আমরা একটি ছেলেকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে কুড়িয়ে নিয়ে হাসপাতাল ভর্তি করিয়ে সাধ্যমত তার বাবাকে চিকিৎসার জন্য ৫০০০ ও ৩০০০ টাকাসহ মোট ৮০০০ হাজার টাকা তুলে দিলাম।

তবে এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত পিছন থেকে দ্রুত গতিতে এসে আঘাত করা ট্রাকটি পালিয়ে যাওয়ায় আটক করা সম্ভব হয়নি বলে সূত্রে জানা যায়।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন