দু-পাঁচটা ছারপোকা টিপে মারলে কিছুই হবে না: ডিআইজি মনির

 
নিজস্ব প্রতিনিধি

 

চুয়াডাঙ্গা: খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এসএম মনির-উজ-জামান বলেছেন, হরতাল-অবরোধের নামে পেট্রোল বোমা মেরে নিরীহ মানুষ হত্যাকারীদের কিভাবে শায়েস্তা করতে হয়, তা আমাদের জানা আছে।

তিনি বলেন, ‘তাদের মনে রাখতে হবে এটা ’৭১ কিংবা ’৭৫ সাল নয়, এখন ২০১৫। জনগণ ও রাষ্ট্রের ক্ষমতা এক হয়েছে। কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠি এখানে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না।’

ডিআইজি মনির আরো বলেন, ‘যে সকল কুলাঙ্গারের বাচ্চা রাতের আঁধারে পেট্রোল বোমা মেরে নিরীহ মানুষদের পুড়িয়ে মারছে, আমরা তাদেরও একইভাবে পুড়িয়ে মারব। দু-পাঁচটা ছারপোকাকে টিপে মেরে ফেললে পুলিশের কোনো ক্ষতিই হবে না।’

ডিআইজি বলেন, ‘নির্বাচন না হলে বাংলাদেশ পাকিস্তান অথবা তালেবানী রাষ্ট্রে পরিণত হতো। বঙ্গবন্ধুর কন্যা যখন তার সুখ-দুঃখ, আনন্দ ভুলে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য চেষ্টা করছেন, তখন আল বদর, রাজাকার ও জঙ্গিরা এ দেশটাকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। আমরা তা হতে দিতে পারি না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা উন্নততর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সঙ্গে খালি হাতে যুদ্ধ করে এদেশ স্বাধীন করেছি। এখনো সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ করে এই জঙ্গিদের আমরা দমন করব।’

খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার ডাকে সাড়া দিয়ে আপনারা সবাই পাড়ায়-মহল্লায় কমিটি গঠন করে নাশকতাকারীদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরিয়ে দিন।’

তিনি বলেন, ‘তাদের ছোঁড়া পেট্রোল বোমায় পুড়ে নিরীহ মানুষ যখন মেডিকেল কলেজগুলোর বিছানায় কাঁতরাচ্ছে, তখন গুলশান-বারিধারায় আয়েশী জীবন-যাপন করছে বিএনপি। এটা আমরা হতে দেব না।’

গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সোয়া সাতটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা, জীবননগর উপজেলা শহরের বাসস্ট্যান্ডে ও সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ বাজারে পৃথক অপরাধ প্রতিরোধ পথসভায় ডিআইজি মনির-উজ-জামান এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দামুড়হুদা উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজগার টগর, খুলনা র্যা ব-৬ অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফ সুমন, অতিরিক্ত ডিআইজি দিদার আহমেদ ও রফিকুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা- ৬ বিজিবির পরিচালক লে. কর্নেল এস এম মনিরুজ্জামান, ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন, চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদুর রহমান, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকারিয়া আলম।

দামুড়হুদা উপজেলায় পথসভার পর খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনির-উজ-জামান চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় অনুরুপ এক পথসভায় বক্তব্য রাখেন।

আরটিএনএন

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন