পটিয়ায় মোজাফরাবাদ গণহত্যা দিবস পালিত

 

ws_Mojafforabad-day-03.05.14
নিজস্ব প্রতিনিধি :: আজ শনিবার দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পটিয়ায় মোজাফরাবাদ গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মোজাফরাবাদ ‘সমন্বয়’ সংগঠনের উদ্যোগে সকাল থেকে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও গার্ড অব অনার প্রদানের মধ্য দিয়ে দিবসটির আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

‘সমন্বয়’ সংগঠনের প্রাক্তন সভাপতি বাবু পলাশ দত্তের সভাপতিত্বে বিকেলে এক স্মরণসভা মোজাফরাবাদ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পটিয়ার সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক ড. তাপসী ঘোষ রায়, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আকম শামশুজ্জামান চৌধুরী, সেক্রেটার বিজন চক্রবর্তী, পটিয়া থানার ওসি সাহাবুদ্দীন খলিফা, ইউপি চেয়ারম্যান মফজল আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

সুমন চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় ও সমন্বয় সংগঠনের সেক্রেটারী বিপ্লব সেন এবং সভাপতি প্রদীপ করের স্বাগত বক্তব্যের পর অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি আবদুল হাকিম, আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল খালেক, শহীদুল আলী মঞ্জু, নাসির উদ্দীন, সমাজসেবক বিধান রায় চৌধুরী, গোলাম সরোয়ার চৌধুরী, এম. এজাজ চৌধুরী, পটিয়া বারের সাবেক সভাপতি এডভোকেট সুজিত বিকাশ দত্ত, শিক্ষক ও শহীদ পরিবারের সন্তান নির্মল চৌধুরী, ডা. বিমল দত্ত, লায়ন সন্তোষ কুমার নন্দী, ডা. মিলন সেন, সমন্বয়ের সাবেক সভাপতি সঞ্জয় চৌধুরী, ইউপি সদস্য লাকী দাশ, অনাদী চৌধুরী, কান্তিময় ঘোষ, প্রকাশ ঘোষ প্রমুখ।Rabiul, Patiya News_Mojafforabad day 03.05.14 (2)

স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি সামশুল হক চৌধুরী এমপি বলেন, পটিয়া তথা দক্ষিণ চট্টগ্রামে এক দিনে এতো শহিদ কোন এলাকায় হয়নি, যা মোজাফফরাবাদ এলাকায় হয়েছে। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আক্রমণ থেকে বাঁচতে নিজেদের রক্ত ঢেলে দিয়ে এ শহিদেরা দেশের জন্য এ এলাকার জন্য বড় অবদান রেখে গেছেন। সেসব শহিদ মুক্তিযোদ্ধাকে আমাদের সবসময় স্মরণ রাখতে হবে। বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন রকম সহযোগিতা দিয়ে আসছে। ভবিষ্যতেও শহিদ পরিবারের সহযোগিতায় আওয়ামীলীগ সরকার এগিয়ে আসবে।

স্মরণ সভার শুরুতে অতিথিবৃন্দ শহিদ মিনারে পুষ্পমাল্য দিয়ে গণহত্যায় ৩শ শহিদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হয়। সভা শেষে প্রধান অতিথি সামশুল হক চৌধুরী এমপির সমযোগিতায় পঞ্চাশ শহিদ পরিবারকে শাড়ি ও লুঙ্গি বিতরণ করা হয় এবং গণহত্যায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নির্যাতন থেকে রক্ষা পাওয়া একজন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধিত করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে গণসংগীতের আয়োজন করা হয়। এতে চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজের শিল্পীরা অংশ নেয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ৩ মে একই রাতে মোজাফরাবাদ এলাকার প্রায় তিনশ’ মুক্তিযোদ্ধা পাকবাহিনীর হাতে শহিদ হন। গণহত্যায় শহীদদের স্মরণ করার জন্য প্রতিবছর এদিনে স্মরণসভা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

 

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন