পুলিশি অভিযানে ডাকাত ও বখাটে আটক;অস্ত্র উদ্ধার ॥

 

ছগির আহমদ আজগরpekua athok 17-10-15
কক্সবাজারের পেকুয়ায় পৃথক অভিযানে ডাকাত ও বখাটে আটক করেছে পুলিশ। গতপরশু ১৬অক্টোবর শুক্রবার রাতে এ আটকাভিযান পরিচালিত হয়। এসময় ১টি দেশীয় তৈরী আগ্নেযাস্ত্রও উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায়, অভিযানের দিন রাতে উপজেলার টইটং ইউনিয়নের পাহাড়িগ্রাম খলিফামুরা এলাকার আবদুর রশিদের পুত্র রিদুয়ানের বাড়িতে একদল অস্ত্রধারী ডাকাত ডাকাতি প্রস্তুতির বৈঠকে মিলিত হয়। গোপন সূত্রে এ সংবাদ পেয়ে পেকুয়া থানার ওসি মোঃ আবদুর রকিব ও এস.আই বিমল কান্তি দে’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে হানা দেয়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি ঠের পেয়ে ডাকাতদল দ্রুত সেখান থেকে পালালেও ওসি আবদুর রকিব ওই ডাকাতদলের পিছু নিয়ে ধাওয়া করে ডাকাতদলটির সক্রিয় ১সদস্যকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ধৃতের নাম মোঃ বুরহান উদ্দিন(২০)। সে বাঁশখালী উপজেলার পূর্ব পুঁইছড়ি গ্রামের মৃত মফিজুর রহমানের পুত্র। পরে, তার স্বীকারোক্তিতে অভিযান চালিয়ে একটি দেশীয় তৈরী একনলা বন্ধুক উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ সুত্রের ধারনা ধৃত অস্ত্রধারী যুবকের সাথে উপজেলার টইটং ইউনিয়নের বহুল আলোচিত আতংকের বোরখা বাহিনী ছাড়াও উপকুলীয় এলাকার অপরাধ জগতের সাথে চেনাজানা রয়েছে। অপরদিকে, একইদিন রাতে পেকুয়া থানার ওসি মোঃ আবদুর রকিব নিয়মিত টহলকালে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের ভারূযাখালী এলাকা থেকে এক বখাটে যুবককে আটক করে। তার নাম মোঃ আলমগীর(১৯)। সে ওই গ্রামের নুর মোহাম্মদের পুত্র। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতের সাথে উপজেলার দূধর্ষ ডাকাত সর্দ্দার বদাইয়ে গ্রুপের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। সে ওই বহুল আলোচিত বখাটে ডাকাতদলের সোর্স হিসাবে পরিচিত। পেকুয়া থানার ওসি মোঃ আবদুর রকিব ২অপরাধীকে আটক ও অস্ত্র উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, অপরাধ ও অপরাpekua athok 17-10-15দীদের সাথে পেকুয়া থানা পুলিশের আর কোন আপোষ নাই। পেকুয়ার মাটি ও মানূষের নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এখন থেকে প্রত্যন্ত পাড়া-মহল্লায় নিয়মিত পোষাকধারী ও সাদা পোষাকধারী পুলিশের নজরদারী ও টহলাভিযান জোরদার থাকবে। কোন অপরাধীই যাতে আর পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ধরাছোঁয়ার বাইরে অবস্থান বা পার না পায় সে বিষয়ে সতর্কতা অব্যাহত রাখবে পুলিশ।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন