পেকুয়ায় সওজ’র অমানবিক উচ্ছেদ অভিযান বন্ধে উচ্চ আদালত আশ্রিত

 

ছগির আহমদ আজগরী,পেকুয়া
কক্সবাজারের পেকুয়ায় সওজ’র অমানবিক উচ্ছেদ অভিযান বন্ধে উচ্চ আদালত আশ্রিত এক ব্যবসায়ীর সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে ওই ব্যবসায়ী সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তার ব্যয় বহুল মার্কেট স্থাপনা ও জায়গার যূগোপযোগী ক্ষতিপূরণ, পূর্নবাসন ও ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেছেন। গতপরশু শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। উপজেলার কলেজ গেইট চৌমুহুনী এলাকার ভাই ভাই মার্কেট নামে একটি ত্রিতল ভবন মালিক স্থানীয় পেকুয়া সদর ইউনিয়নের মিয়ারপাড়া এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবক ও ব্যবসায়ী হিসাবে পরিচিত অবসরপ্রাপ্ত বিডিআর সদস্য মোঃ জাহাঙ্গীর আলম নামের এক ব্যবসায়ী তার লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করে বলেন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গত ২৫এপ্রিল পেকুয়া কলেজ গেইট চৌমুহুনী এলাকায় আঞ্চলিক(এবিসি)মহাসড়কে অতর্কিত উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে। এসময় কু’চক্রী মহলের ইন্দন ষড়যন্ত্রে প্রলোভিত হয়ে অভিযান পরিচালনাদল সূদূরপ্রসারী নীল নকশার অংশ হিসাবে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ওইদিন বেলা আনুমানিক দেড়টার সময় সংবাদ সম্মেলনকারীর মালিকানাধীন পেকুয়া মৌজার বিএস ৭৮৯নং খতিয়ানের বি.এস ১৮৮৭, ১৮৮৯ ও ১৮৯১দাগাদীর আন্দরে খরিদ সূত্রের মালিকানাধীন ১৬শতক জায়গায় নির্মিত ব্যয় বহুল ত্রিতল ভাই ভাই মার্কেট ভবন গুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা চালায়। মার্কেটের ভাড়াটিয়া ও স্থানীয় লোকজনের মুখে বিষয়টির খবর পাইয়া স্বশরীতে অভিযোগকারী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ বিডিআর জাহাঙ্গীর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইয়া অভিযান পরিচালনাকারীদের কাছে তার মার্কেট ও জায়গার যূগোপযোগী ক্ষতিপূরণ ও পূর্নবাসন দাবী জানিয়ে তার মালিকানাধীন মার্কেট ভাংচুর ও উচ্ছেদ বন্ধ করার আবেদন জানান। এসময় ক্ষতিগ্রস্ত মার্কেট মালিক ব্যবসায়ী বিডিআর জাহাঙ্গীরের বক্তব্য ও দাবীর কোন সদুত্তর না দিয়ে উচ্ছেদ অভিযান সংশ্লিষ্ট অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কোন কথা না শুনে ভবনটির মালিক ও ভাড়াটিযা ব্যবসায়ীদের উল্টো ভয়ভীতি প্রদর্শন পূর্বক অসৌজন্য মূলক হাকাবকা ও অসদচারণ করেন। একপর্যায়ে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন ও জায়গার মালিক গত ২০০৬-০৭সাল হইতে তার ক্ষয়ক্ষতির সময় ও যূগোপযোগী ক্ষতিপূরন দাবী আবেদনের বিষয়ে দফায় দফায় স্মরণাপন্ন যোগাযোগ করেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের লোকজনদের কাছ থেকে সাড়া পাননি বলে উল্লেখ করে তার কাগজপত্র প্রদর্শন করে বিহিত পূর্বক উচ্ছেদ অভিযান চালানোর বিনিত অনুরোধ করেন। কিন্তু ওইদিনের উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনাকারীরা তার কোন কথাবার্তা শুনতে অপারগতা জানিয়ে অতি উৎসাহে ভুক্তভুগী বিডিআর জাহাঙ্গীর এর মালিকানাধীন ব্যয় বহুল ত্রিতল মার্কেট ভবনটি বেআইনী ভাবে ভাংচুর গুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রাখলে তিনি উচ্ছেদ ক্ষয়ক্ষতি হতে নিস্তার ও প্রতিকার পাওয়ার আশায় গত ২৮/০৪/২০১৫ইং তারিখে মহামান্য সূপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশান(উচ্চ)আদালতে পিটিশান দায়ের ও আশ্রয় গ্রহনের বিষয়টিও তাদের অবহিত করি। আর ওই রিট পিটিশান স্মারক নং-৪২০০/৩০-০৪-২০১৫ইং। উচ্চ আদালতের রিট পিটিশান কপির ছায়া প্রতিলিপি’র কপি সওজ’র উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় উপস্থিত সওজ’র উপ-প্রকৌশলী মোঃ এমদাদুল হক ও পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের নেতৃত্বাধীন লোকজনদের কাছে হস্তান্তর করিলেও তাহারা উচ্চ আদালতে আশ্রিত ও রিট পিটিশান বিষয়ের প্রতি প্রকাশ্য জনসম্মুখে চরম অশ্রদ্ধা অবজ্ঞা দেখাইয়া সম্পূর্ণ মাস্তানী ও ফিল্মি ষ্টাইলে পেকুয়া কলেজ গেইট চৌমুহুনীস্থ্য সংবাদ সম্মেলন আয়োজক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ বিডিআর জাহাঙ্গিরের মালিকানাধীন ভাই ভাই মার্কেট নামের ব্যয় বহুল ত্রিতল ভবনে বুলডোজার আঘাত করে প্রায় ৭০/৮০লাখ টাকার ক্ষতি সাধনের ঘটনা ঘঠান। যা দেশের উচ্চ আদালত ও তথায় আশ্রিতের প্রতি চরম অবজ্ঞা অশ্রদ্ধার সামিল ও সম্পূর্ণ বে-আইনী, মাস্তানী। এসময় পেকুয়া কলেজ গেইট চৌমুহুনীস্থ্য ভাই ভাই মার্কেট ভবন মালিক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ বিডিআর জাহাঙ্গীর মহামান্য সূপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশানের রিট পিটিশান অমান্যের ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করত আশু আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে সরকার ও সংশ্লিষ্টদের সু’দৃষ্টি হস্তক্ষেপ কামনা করেন। অন্যথায় ন্যায় বিচার প্রার্থনায় তিনি উচ্চ আদালতের রিট পিটিশান শুনানীকালে বিষয়টিও অবহিত করার কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় বণিক সমিতি, সমাজ, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গও উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিভিন্ন জাতীয়, আঞ্চলিক ও আভ্যন্তরীন পত্র পত্রিকার স্থানীয় সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন