প্রতীক থাকছেনা স্থানীয় নির্বাচনে

 

দলভিত্তিক স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইনে দুটি পরিবর্তন এনে দলীয় প্রধানের অর্থাৎ দলীয় প্রতীক ব্যবহারের সুযোগ করে দিচ্ছে ইসি এর ফলে আলাদা প্রতীক লাগছে না। এছাড়া সরকারি সুবিধাভোগী তালিকায় সংসদের মতো সাংসদ ও সিটি করপোরেনের মেয়রদের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার ওপর বিধি নিষেধ আরোপ করছে ইসি।up

মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনে আইনের খসরা তৈরি করা হয় সংসদে দলভিত্তিক স্থানীয় সরকার আ্ইন চূড়ান্ত ভাবে পাস হলে ইসি এটি কর্যকর করবে। নির্বাচন কমিশনার মো. আবদুল মোবারক বিডি টুযেন্টি ফোর লাইভকে বলেন, স্থানীয় নির্বাচন দলভিত্তিক হলে বিদ্যমান আচরণবিধিতেও পরিবর্তন আনব আমরা।

স্থানীয় সরকার আইন সংশোধন সংক্রান্ত অধ্যাদেশ জারি অথবা বিল পাস হলে তার আলোকে আচরণবিধিতেও কিছু সংশোধনী আনতে হবে। সেক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির বিষয়ে সব দিক বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিব আমরা।

ইসির একজন নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, “সংসদ নির্বাচনে ভোটার স্লিপup বিতরণে কোনো বাধ নেই। স্থানীয় নির্বাচনে প্রচারণার সুবিধার্থে আর বিশেষ কোনো পদের বিষয়ে আলাদা ছাড় দেওয়া যাবে না। সময় অল্প থাকাতে আমরা মৌখিক নির্দেশে বিধিমালাগুলো পর্যালোচনা করছি। আইন বা অধ্যাদেশ জারি হলেই দ্রুত যেনো বিধিমালা জারি করা সম্ভব হয় সে লক্ষ্যে প্রস্তুতি রাখা হচ্ছে।”

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দলভিত্তিক স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে সামনে রেখে সংশ্লিষ্ট আইন সংস্কারের রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করলেই সবচেয়ে ভালো হতো। এক্ষেত্রে দলের নির্বাচনী ব্যয়সীমা নির্ধারণ, আচরণবিধি সংশোধন, দলীয় মনোনয়ন, আইন শৃঙ্খলাবাহিনী, অপরাধ-দণ্ড, ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনসহ নানাবিধ বিষয়ে দলীয় মনোভাব স্পষ্ট হতো। “যাতে করে খুব সহজেই আইনী সংস্কার সম্পন্ন করা সম্ভব হত”।

দশম সংসদ নির্বাচনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা জানান, নির্বাচনকালীন আচরণবিধি প্রণয়নে রাজনৈতিক দল ও আইনজ্ঞদের মতামত নেওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা করে নি ইসি।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন