প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ‘বাধ্যতামূলক’ কোচিং করানোর অভিযোগ

 

আমিনুর রহমান হৃদয় ঠাকুরগাঁওthakurgaon+hridoy

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ‘জোর’ করে কোচিং করানোর অভিযোগ উঠেছে।

অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা জেলার সবুজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী বলে, “স্যার ক্লাসে প্রায়ই বলেন, প্রাইভেট না পড়লে স্কুল থেকে বের করে দিব।”

আসছে পঞ্চম শ্রেণির মডেল টেস্টে ফেল করিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়েও প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে ওই স্কুলের পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া দুই শিক্ষার্থী।

একজন পিএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবক জানান, এভাবে শিক্ষার্থীদের চাপ দিয়ে প্রাইভেট পড়ানো অনিয়মের মধ্যে পড়ে।

“আমরা অভিযোগ করার সাহস পাই না। কারণ বাচ্চারা এখনও স্কুলে পড়ে।”

বাধ্যতামূলক প্রাইভেট পড়ানোর কথা অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বলেন, “আমার স্কুলে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীর সংখ্যা একশ জন। আমার কাছে প্রাইভেট পড়ে মাত্র ৩০ জন।

“যদি চাপ দিতাম তাহলে তো সবাই আমার কাছে পড়তো।”

এ বিষয়ে কথা হয় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নজরুল ইসলামের সঙ্গে।

তিনি জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী শুধুমাত্র অভিভাবকরা আবেদন করলেই অতিরিক্ত ক্লাস নিতে পারবেন শিক্ষকরা। তবে সমাপনী পরীক্ষাকে সামনে রেখে অনেক স্কুলেই বিশেষভাবে পড়ানো হয়।

“তবে শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলক কোচিং বা প্রাইভেট পড়ানোর অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন