ফের ভূমিকম্প, উৎপত্তিস্থল মিয়ানমার

 

ত্রিপুরায় মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্পে ঢাকাসহ দেশের বিস্তীর্ণ এলাকা কম্পিত হওয়ার ১২ ঘণ্টার মধ্যে চট্টগ্রাম ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ফের ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। বুধবার রাত ১২টা ৪৯ মিনিটে হওয়া ৫ দশমিক ১ মাত্রার এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল মিয়ানমারের মাওলাইক এলাকার ৩৮ কিলোমিটার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বলে ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএসের ওয়েবসাইটে দেখানো হয়েছে।
hjhgjg
ভূ-পৃষ্ঠ থেকে উৎপত্তিস্থলের গভীরতা ছিল ৯৩.২ কিলোমিটার। এরআগে মঙ্গলবার বিকাল ৩টা ৯ মিনিটে অনুভূত হওয়া ভূমিকম্পের উপকেন্দ্র ছিল ত্রিপুরার আম্বাসা এলাকায়, ভূপৃষ্ঠের ৩৬ কিলোমিটার গভীরে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫।

বিকালে অফিস ছুটির ঘণ্টা দুই আগে রাজধানীর ভবনগুলো ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলে আতঙ্ক তৈরি হয়। অনেকেই ভবন ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন।

পূর্ব ও দক্ষিণের সিলেট, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম অঞ্চল ছাড়াও মধ‌্য ও উত্তরের অধিকাংশ জেলায় ওই ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে বলে খবর দেন সংবাদকর্মীরা। আতঙ্কে সুনামগঞ্জে দুজনের মৃত‌্যু এবং কয়েকটি স্থানে আরও কয়েকজনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়।

ভূমিকম্পের সময় সীমান্ত লাগোয়া ভারতের ত্রিপুরায় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে এক নারীর মৃত‌্যু এবং চারজন আহত হয়েছে বলে খবর দেয় টাইমস অফ ইন্ডিয়া। এছাড়া কয়েকটি স্থানে ভূমিধস ঘটে। তবে বাংলাদেশ সময় মধ্যরাতের পর মিয়ানমারের ভূমিকম্পে দেশের কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

পিডিএসও

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন