ভারতে রাষ্ট্রপতি হওয়ার দৌড়ে চা বিক্রেতাসহ ৯৫ জন

 

ভারতের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে চা-বিক্রেতা, কেরানি, কৃষকসহ বিভিন্ন শ্রেণীর ৯৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এদের মধ্যে বিহার রাজ্যের নিন্ম শ্রেণীর কর্মচারী (কেরানি) লালু প্রসাদ যাদব, তামিলনাড়ুর কৃষক অগ্নি শ্রীরামচন্দ্রন, উত্তরাখণ্ডের আইনজীবী অজয় কুমার গুপ্ত, মধ্যপ্রদেশের চা-বিক্রেতা আনন্দ সিং কুশওয়াহা আর নির্মাণ শ্রমিক মো. আবদুল হামিদ পাতিলও রয়েছেন।

বুধবার ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন। খবর ফার্স্ট পোস্টের।

পেশার দিক দিয়ে এই পাঁচজন আলাদা হলেও উদ্দেশ্য তাদের এক। ভারতের রাষ্ট্রপতি হতে চান তারা। এরই মধ্যে তারা মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার জন্য ১৫ হাজার রুপি করে খরচ করেছেন।

আগামী ১৭ জুলাই দেশটিতে অনুষ্ঠিত হবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। তবে আদৌ তাদের আশা পূরণ হয় কিনা সেটা দেখার বিষয়। কারণ নির্বাচিত ১০০ বিধায়ক ও সংসদ সদস্যের (এমপি) মধ্য থেকে বেছে নেয়া হবে একজন রাষ্ট্রপতি। তাই যাচাইকালেই বাতিল হবে ওই পাঁচজনের মনোনয়নপত্র।

তা সত্ত্বেও রাষ্ট্রপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন ওই পাঁচজন। উত্তরাখণ্ডের আইনজীবী অজয় কুমার বলেন, ক্ষমতায় এলে ভারতের প্রেসিডেন্সিকে আরও ক্ষমতাশালী করবেন তিনি।

এ ছাড়া পাকিস্তানকে উচিত শিক্ষা দিয়ে কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদ সমস্যা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সমাধান করবেন বলে জানান তিনি। অজয়ের মতো অন্য চার রাষ্ট্রপতি প্রার্থীও জানিয়েছেন তাদের বিভিন্ন প্রতিশ্রুতির কথা। এখন পর্যন্ত ৯৫ প্রার্থী রাষ্ট্রপতি পদের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে ১২ জনের মনোনয়ন বাতিল করেছে।

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন