মেধাহীন এক বাবার এলো-মেলো কিছু কথা

 

czczx
আবদুল মতিন ডালিম []
নিজের কথা বলছি, এইচ.এস.সি প্রথম বর্ষে কলেজের নবীন বরণ অনুষ্টানে ছাত্রদলের কিছু সংখ্যক সন্ত্রাসীর হামলায় মরণ আমায় হাতছানি দিয়ে স্পর্শ করতে চাইল।কিন্তু মহান আল্লাহর অশেষ রহমত ও মা এবং এলাকার লোকজনের দোয়ায় নতুন জীবন পেয়ে আজ অবধি বেঁচে আছি।অসুস্থ্য শরীর নিয়ে অনেক কষ্ট-সংগ্রাম করে এইচ.এস.সি পাশ করলাম।বি.এ(ডিগ্রী)প্রথম বর্ষে ভর্তি হই।ছাত্র রাজনীতি থেকে বিদায় নেওয়ার জন্য যুগল জীবনে পা দিই।বিয়ের কয়েক মাসের মধ্যে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রকল্পে সি.এইচ.সি.পি পদে আবেদন করি।কিছু দিনের মধ্যে কমিউনিটি ক্লিনিকে চাকরীও হয়ে যায়।পারিবারিক সমস্যার কারণে(আমার বউ গর্ভবতী)বি.এ প্রথম বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিই।কিন্তু বউয়ের অনুরোধে পরীক্ষা দিতে বাধ্য হই এবং ফলাফল ভাল হয়।বি.এ দ্বিতীয় বর্ষের ফাইলান পরীক্ষার প্রস্তুতি নিলাম আমার মেয়ে মতিয়া জাহান মীমকে কুলে নিয়ে।পরীক্ষা দিলাম যথারীতি ফলাফলও ভাল হল।বি.এ ফাইনাল বর্ষে এসে নানা রকম সমস্যায় পড়ে গেলাম।মেয়ের অসুস্থ্যতা,মেয়েকে সময় দেওয়া,চাকরীতে অক্লান্ত পরিশ্রম,পারিবারিক কাজে ব্যস্থতা ইত্যাদির কারণে পরীক্ষা না দেওয়ার আবারও সিদ্ধান্ত নিলাম।পরীক্ষার ব্যাপারে বউয়ের আকুতি-মিনতি,কলেজের শ্রদ্ধেয় ফারুখ স্যারের দিক-নির্দেশনামূলক কথায় অনুপ্রানিত হয়ে মেয়েকে কুলে-পিঠে নিয়ে আবারও পরীক্ষার প্রস্তুতি নিলাম।প্রথম,দ্বিতীয় বর্ষের মত প্রতিদিন(পরীক্ষার দিন সকালে)টেকনাফ থেকে কক্সবাজার প্রায় ৮৬ কি.মি.পথ অতিক্রম করে বি.এ ফাইনাল পরীক্ষা দিই।গত ২২ সেপ্টেম্বর রাতে ডিগ্রী পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়।আল হামদুলিল্লাহ,সেকেন্ড ডিভিশনে বি.এ পাশ করলাম। সবার আগে ডিগ্রী পাশের মিষ্টি আমার মেয়ের মুখে তুলে দিই(প্রথম মিষ্টি মেয়ের মুখে দেব বলে অনেক আগে শপথ করেছিলাম)।জানি না,কোন বাবা তাঁর ডিগ্রী পাশের মিষ্টি সন্তানকে খাওয়াতে পারছে কিনা! আমার অতুলনীয় মা,বউ এবং শ্রদ্ধেয় ফারুখ স্যার আপনাদের অনুপ্রেরণা ভবিষ্যতেও প্রত্যাশা করছি।আমার কলিজার টুকরা মতিয়া জাহান মীম,শুধু তোমার ভবিষ্যতের কথা ভেবে আমার ডিগ্রী পাশ করা,যাতে তুমি সর্ব মহলে বলতে পার-“আমার বাবা ডিগ্রী পাশ এবং ডিগ্রী পাশের প্রথম মিষ্টি আমি খেয়েছি”।
ধৈর্য সহকারে পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ
সূত্র :ফেইকবুক স্ট্যস্টর্স

 
 
 

0 মতামত

আপনিই প্রথম এখানে মতামত দিতে পারেন.

 
 

আপনার মতামত দিন