অস্ত্র কেড়ে পুলিশ পেটাল শিবির

Rajshaheewqi-Po-Photo-06-

রাজশাহীতে হরতালের মধ্যে পুলিশের অস্ত্র কেড়ে নিয়ে দুই কনস্টেবলকে পিটিয়ে আহত করেছে ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীরা।
তাদের ঢিলের আঘাতে আহত হয়েছেন পুলিশের পিকআপ চালকসহ আরো দুইজন।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে নগরীর সপুরা ওয়াসা ভবনের সামনে হরতালের সমর্থনে ঝটিকা মিছিল থেকে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

পরে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে আটক করা হয় বলে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম জানান।

আহত পুলিশ কনস্টেবল শফিকুল ইসরাম ও আমজাদ হোসেনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া ঢিলে আহত এসআই জাহাঙ্গীর ও পিকআপ চালক মাইনুল ইসলামকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, সকাল সোয়া ১০টার দিকে ছাত্রশিবির কর্মীরা ওই এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করে এবং সড়কে পেট্রোল ঢেলে আগুন জ্বালায়। এ সময় পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যান সেখানে গেলে তারা বৃষ্টির মতো ঢিল ছুড়তে শুরু করে।

পুলিশ কনস্টেবল আমজাদ ও শফিকুল এরইমধ্যে পিকআপ থেকে নেমে পড়ায় ২০-২৫ জন শিবিরকর্মী তাদের ওপর চড়াও হয়। তারা ওই দুই পুলিশ সদস্যকে লাঠি ও ইট দিয়ে আঘাত করে এবং অস্ত্র ও হেলমেট কেড়ে নেয়।

এরপর বিজিবি সদস্যরা এগিয়ে গেলে শিবিরকর্মীরা সেখান থেকে সরে পড়ে।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বছর পূর্তির দিনে রাজশাহীর পুঠিয়ায় বানেশ্বর বাজারে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আব্দুল মজিদ (৪৫) নামে এক বিএনপিকর্মী নিহতের প্রতিবাদে রাজশাহীতে মঙ্গলবার সকাল-সন্ধ্যা এই হরতাল ডাকে দলটি।

পুলিশ কর্মকর্তা ইফতে খায়ের জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হরতালসমর্থকরা নগরীর সোনাদিঘী মনিচত্বরেও রাস্তায় পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছালে তারা পুলিশের দিকে ইট ছুড়ে পালিয়ে যায়।

এছাড়া সকালে কাদিরগঞ্জ মোড় থেকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়। মালোপাড়া হয়ে মিছিলটি ভূবন মোহন পার্কে গিয়ে শেষ হয়।

মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও মহানগর বিএনপির সভাপতি শফিকুল হক মিলনও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

হরতালের আগে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর শ্যামপুর এলাকায় গম গবেষণা কেন্দ্রের কাছে সার বোঝাই একটি ট্রাক ভাঙচুর করে তাতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুনে ট্রাকের সামনের অংশ পুড়ে যায়।

ট্রাকের চালক মিজানুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তিনি সিরাজগঞ্জের নগরবাড়ী থেকে সার নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমনুরায় যাচ্ছিলেন। পথে ১৫/২০ জন লোক এসে রাস্তায় গাছ ফেলে ট্রাকটি আটকে দেয়।

প্রথমে হামলাকারীরা গাড়ির সামনের কাচ ভেঙে ফেলে। চালক গাড়ির ভেতরে থাকা অবস্থায় তারা পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। মিজান কোনো রকমে নেমে এসে আত্মরক্ষা করেন।

নগরী মতিহার থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, “খবর পাওয়ার পর পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”

এদিকে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপি কর্মীদের সংঘর্ষে একজন নিহত হওয়ার পর রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর, বেলপুকুর ও শিবপুর এলাকায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

পুঠিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) খোন্দকার ফরহাদ আহম্মেদ জানান, সোমবার রাত ১২টা থেকে পরিবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ওই এলাকায় সব ধরনের সভা সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।