আওয়ামীলীগের সুনাম নষ্টকারি এমপিদের দল থেকে বের করে দেয়া হবে

বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ৬জুলাই শুক্রবার আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এবং আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়। নির্বাচনের আগে সেখানে প্রধানমন্ত্রী এবং দলের সভাপতি শেখ হাসিনা কঠোরভাবে দলের শৃঙ্খলা রক্ষা এবং অন্ত-কলহ মেটানোর জন্য নির্দেশনা দেন। তিনি বলেন,‘ কোন অবস্থাতেই দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টিকারীদের প্রশ্রয় দেয়া হবে না।

কয়েকজন এমপির জন্য আওয়ামী লীগের বদনাম হচ্ছে। আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা নষ্ট হচ্ছে। না হলে আওয়ামী লীগ যে কাজ করেছে গত দশ বছরে, তাতে জনগণ আওয়ামী লীগকে কেন ভোট দিবে না? গুটিকয়েকজনের কর্মের জন্যই আওয়ামী লীগের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। এই সুনাম নষ্ট বরদাস্ত করা হবে না’

প্রধানমন্ত্রী ইঙ্গিত দেন যে, যে সকল এমপিরা ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় বিভিন্ন নিয়োগ বাণিজ্য, টেন্ডার বাণিজ্য কিংবা চাঁদাবাজির মতো বিভিন্ন দূর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত, তাঁরা আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পাবে না। ‘

তিনি বলেন, ‘অনেক জায়গাতেই তৃনমূল আওয়ামী লীগকে কোনঠাসা করে রেখেছে নব্য আওয়ামী লীগাররা। এসব ঘটছে দায়িত্বশীল এমপিদেরই পৃষ্ঠপোষকতায়।’

এ ব্যাপার তদন্তের জন্য দলের দায়িত্বশীলদের নিয়ে একটি কমিটি করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি । তাঁরা দলের মধ্যে পর্যালোচনা করবে। বিভিন্ন দল, বিশেষ করে বিএনপি-জামাত থেকে যারা এসে আওয়ামী লীগে প্রভাব বিস্তার করছে। মূল আওয়ামী লীগকে কোনঠাসা করছে। যারা অপকর্ম করে আওয়ামী লীগের চরিত্র হননের চেষ্টা করছে। তাদের তালিকা তৈরী করে দল থেকে বের করে দেয়া হবে।‘

আগামীকাল ৭ জুলাই প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয় পর্যায়ে তৃনমূলের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এই বৈঠকের পরেই সেসকল এমপি-মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, দুর্নীতি এবং জনপ্রিয়তা হারানোর অভিযোগ রয়েছে, তাদেরকে আগামী নির্বাচনের মনোনয়ন থেকে চূড়ান্তভাবে বাদ দেয়া হবে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।