উপজেলা উপ-নির্বাচন : ফল প্রত্যাখ্যান জেলা বিএনপির : ২৩ ডিসেম্বর আধাবেলা হরতাল

55021_h7777ortal_4১৯ কেন্দ্রের ভোট বাতিল ও নতুন নির্বাচন দাবি
কক্সবাজার সদরের কাছের উপজেলা রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে আগামি ২৩ ডিসেম্বর আধাবেলা হরতালের ডাক দিয়েছে জেলা বিএনপি। একই সাথে ১৯টি কেন্দ্রের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে ওই সব কেন্দ্রে পূণরায় নির্বাচন অনুষ্টানের দাবি তোলা হয়েছে।
রোববার রাতে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকে দলটির জেলা সভাপতি ও সাবেক সাংসদ শাহজাহান চৌধুরী এই ঘোষণা দিয়েছেন।
এই উপ-নির্বাচনে ৪০ হাজার ১২০ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রিয়াজ উল আলম। তিনি রামু উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও একজন ঠিকাদার।
তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মেরাজ আহমেদ মাহিন চৌধুরী। তিনি পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৮৩২ ভোট। তার বাবা উপজেলা চেয়ারম্যান আহমেদুল হক চৌধুরীর আকস্মিক মৃত্যুর পর এই উপ-নির্বাচন হয়েছিল ২১ ডিসেম্বর রোববার।
এই নির্বাচনে আরেক প্রতিদ্বন্ধি জামায়াতে ইসলামি সমর্থিত ফজলুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান পেয়েছেন মাত্র ১৫ হাজার ১১৭ ভোট। তিনি রামু উপজেলা জামায়াতে ইসলামির আমীর।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপি সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের ক্যাডার বাহিনী ও প্রশাসন যোগসাজসে রামু উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ১৯টি ভোট কেন্দ্র দখল করে নিজেরাই সিল মেরে অন্তত ২০ হাজার ভোট ডাকাতি করেছে। এসব কেন্দ্র আমাদের এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। নয়তো ভোট কেন্দ্রেই জিম্মি করে তাদের অপকর্ম সহ্য করতে বাধ্য করেছেন। সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং অফিসারদের অভিযোগ করেও তার কোন সুরাহা পাওয়া যায়নি।’
তিনি দাবি করেন, ‘তারপরও নির্বাচনের শেষ পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ এবং নির্বাচন কমিশনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের লিখিত অভিযোগ করার পরও তাদের পক্ষ থেকেও পদক্ষেপ নিতে আমরা দেখিনি। যার ফলে আমরা ভোট ডাকাতির এই ফলাফল প্রত্যাখ্যান করছি।’
শাহজাহান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, তাৎক্ষনিক ভাবে আগামি ২৩ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত হরতালের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরে বৈঠক করে আরও বিস্তারিত কর্মসূচি হাতে নেয়া হবে।
বিএনপি যে ১৯ কেন্দ্রে নতুন ভোটের দাবি করেছে তা হলো মনিরঝিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাউয়ারখোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উখিয়ার ঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসা হেফজখানা ও এতিমখানা (লামারপাড়া মাদ্রাসা), রামু খিজারী আদর্শ উচচ্ বিদ্যালয়, পশ্চিম মেরংলোয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মন্ডল পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রামু খিজারী বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নন্দাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঘোনারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জোয়ারিয়ানালা হাইস্কুল, চেইন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পানেরছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ চাকমারকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জারাইলতলী উচ্চ বিদ্যালয়, চাকমারকুল দারুল উলুম মাদ্রাসা, মৌলভীকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জারাইলতলী উচ্চ বিদ্যালয় ও রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এটিএম নুরুল বশর চৌধুরী, কক্সবাজার পৌর বিএনপির সভাপতি রফিকুল হুদা চৌধুরী, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থী মেরাজ আহমেদ মাহিন চৌধুরী, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রাশেদ মোহাম্মদ আলী, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল মাবুদ, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইউসুফ বদরী, যুবদল নেতা মোকতার আহমদ, জেলা যুবদল সভাপতি সৈয়দ আহমদ উজ্জল, জেলা ছাত্রদল সভাপতি রাশেদুল হক রাসেল প্রমূখ।
উল্লেখ্য, ২১ ডিসেম্বর এই উপ-নির্বাচন অনুষ্টিত হয়। ৫০টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হয়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।