কোর্ট পুলিশের হাতে আইনজীবি নাজেহাল !

আতিকুর রহমান মানিক কক্সবাজারে কোর্ট পুলিশের হাতে নাজেহাল হয়েছেন এক আইনজীবি। সোমবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয় ভবনের নীচতলাস্থ কোর্ট হাজতখানায় এ ঘটনা ঘটে। এতে আইনজীবিদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। আক্রান্ত আইনজীবির নাম মোহাম্মদুল হক মাহমুদ। প্রত্যক্ষদর্শী এডভোকেট মোঃ ফয়সাল জানান, সোমবার জেলা করাগার থেকে আদালতে হাজিরা দিতে আনা হয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী টেনাফের জনৈক জুবায়েরকে। কিন্তু তাকে কোর্ট হাজতখানার পরিবর্তে পুলিশ ব্যারাকে রেখেছিল কোর্ট পুলিশ সদস্যরা। এডভোকেট মাহমুদুল হক মাহমুদ এ ব্যাপারে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টি আকর্ষন করলে কনস্টেবল জসিম, রাশেদ, বাবলু ও হুমায়ুন তার উপর চড়াও হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা আরো জানান, আক্রান্ত এডভোকেট মোহাম্মদুল হক মাহমুদ নিজকে আইনজীবি পরিচয় দিলেও পুলিশ কনস্টেবলরা মারমুখী আচরন ও তাকে শারিরীকভাবে নাজেহাল করে। এখবর ছড়িয়ে পড়লে জেলা আইনজীবি সমিতি ভবনে শতাধিক আইনজীবি জড়ো হয়ে প্রতিবাদে ফেটে পড়েন। সংঘটিত ঘটনায় আইনজীবিদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। তবে, স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী একজন আইনজীবী সহকারী জানিয়েছেন, হাজতি আসামি জুবায়েরকে কোর্ট সেলে ঢুকে ঘুসি মারেন এডভোকেট মাহমুদ। এ সময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তাকে ধরে ফেলে। পরে জিয়াউদ্দিন বাবলু নামের আরেক আইনজীবী কোর্ট সেল থেকে এডভোকেট মাহমুদকে নিয়ে আসতে চাইলে ধস্তাধস্তি হয়। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে আদালত অঙ্গনে। খবর পেয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব কুমার নাথের মধ্যস্থতায় উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা বৈঠক হয়। এই ঘটনার জন্য উভয়পক্ষকে দুষছেন স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।