জাদীমুরা ঘাট দিয়ে ইংরেজি পত্রিকার বান্ডিল যাচ্ছে মিয়ানমার

hiufsdfsd

শামশুল আলম শারেক::টেকনাফের হ্নীলা রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ এলাকা জাদীমুরার আদম ঘাট দিয়ে অবৈধ ভাবে দেশে আসছে বর্মী নাগরিক ও মরণ নেশা ইয়াবা সহ বিদেশী মাদক দ্রব্য। এসব আদমঘাট দিয়ে নিয়মিত আসছে বর্মী নাগরিক, ইয়াবা, বিদেশী মদ, চোরাইকৃত গরু-ছাগল, চামড়া, অস্ত্র, এস্ক্রাপ সহ বিভিন্ন প্রকার মাদক। বিনিময়ে পাচার হচ্ছে জ্বালানী তেল, সার, মোটর সাইকেল, মেশিনারী পার্টস, সিমেন্ট, সুখি ভরি, ডিপো ইনজেকশন, মেডিসিন, এ্যালমুনিয়াম, কসমেটিকস, মোবাইল সেট, সিম, ইংরেজি দৈনিক পত্রিকার বান্ডিল সহ নানান ধরণের পণ্য। এসব জিনিস অনুপ্রবেশ ও পাচারে সরকার যেমনি টেক্্র পাচ্ছেনা। তেমনি রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ও মাদক কিছুতেই থামছেনা। এভাবে অবৈধ পন্থায় ঘাট পারাপার করতে গিয়ে গত সনে এবং চলতি সনে আদম বোঝাই নৌকা ডুবির ঘটনায় বিশেষ কারণে মামলা না হওয়ায় জড়িতরা আরো বেশী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। আদমঘাট নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী আঙ্গাআঙ্গি ভাবে জড়িত আছে। আদমঘাট নিয়ে বিভিন্ন সময় পত্রিকায় লেখালেখির পরও প্রশাসনিক পদক্ষেপ না হওয়ায় ঘাট নিয়ন্ত্রণে জড়িতরা দিন দিন আরো বেপরোয়া হয়ে উঠছে। এতে করে পুরো হ্নীলার মাদক ও আইনশৃংঙলা অবনমন কিছুতেই ঠেকানো যাচ্ছেনা। জানাযায়, জাদীমুরা নয়াপাড়া টু বড় গউজিবিল ঘাট বিনিময়ে জড়িত স্থানীয় লাল মিয়ার পুত্র জামালের নেতৃত্বে আবু শামার পুত্র ছৈয়দ আলম কালু, আলী মুনশীর পুত্র আলম, আবু আহমদের পুত্র ফরিদ, সিরাজ, জাহেদ হোসনের পুত্র ইউসুফ, মলই আবুল হোছনের পুত্র মজিদিয়া হাসান পুতিলা সহ ৭জইন্যা সিন্ডিকেট। স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানাযায়, এসব আদম ঘাট দিয়ে দেশে অনুপ্রবেশকালে ঘাট নিয়ন্ত্রন কারীরা প্রতি জনের কাছ থেকে ১হাজার টাকা নিয়ে থাকে। আর এক্ষেত্রে মাথাগনা বিজিবিকে ২শ টাকা করে দিতে হয়। এঘাট পারাপারে বিজিবির কতিপয় দুর্নীতি পরায়ন সদস্য ওতপ্রোতভাবে জড়িত আছে। এদিকে মিয়ানমারের সাথে ঘাট বিনিময় হওয়াতে জেলেদের নৌকা অনেক সময় চুরি হওয়ার কথা স্থানীয়রা জানান। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধি অভিযোগ করেন, এলাকার আইন শৃংঙলা উন্নতির স্বার্থে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ, অপরাধ ও মাদক নিয়ন্ত্রণ করতে হলে এসব ঘাট একেবারে বন্ধ করতে হবে। এলাকার সচেতন মহল মনে করেন, দেশ ও দশের স্বার্থে আদমঘাট নিয়ন্ত্রণে জড়িতদের বরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। আদামঘাট নিয়ন্ত্রণে জড়িত ২/১ জনের সাথে তাদের সম্পৃক্ততার ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা এ প্রতিবেদককে নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বলেন কি করব কিছু একটা করতে তো হবে। হ্নীলার সর্বস্তরের জনসাধারণ জরুরী ভিত্তিতে জাদীমুরার অবৈধ আদম ঘাট বন্ধের মাধ্যমে রোহিঙ্গা, মাদক অনুপ্রবেশ বন্ধ ও দেশীয় মালামাল পাচাররোধে ৪২ বিজিবির অধিনায়ক মহোদয়ের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। ##

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।