টেকনাফে ওয়াক্ফ সম্পত্তি নিয়ে হরিলুটের মহোৎসব

টেকনাফ:
টেকনাফ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে ওয়াক্ফ সম্পত্তি হরিলুটের অভিযোগ উঠেছে। প্রায় অভিযোগ ওয়াক্ফ দাতা পরিবারের কতিপয় অসৎ ওয়ারিস ও কথিত পরিচালানা কমিটির বিরুদ্ধে। টেকনাফে বেশ কয়টি প্রতিষ্ঠানে প্রচুর ওয়াক্ফ সম্পদ রয়েছে। নামে লিল্লাহ ওয়াক্ফ হলেও বাস্তবে অসাধু পরিচালনা কমিটি ও ওয়াক্ফ দাতার কতিপয় অসাধু ওয়ারিশরা। ইসলামী শরীয়াহ ও দেশীয় আইন মতে ওয়াক্ফ সম্পত্তির ব্যবহার আইন যথাযথ বাস্তবায়ন ও জবাব দিহীতা না থাকায় এমনটাই হচ্ছে বলে মনে করেন ধর্মীয় বিশেষজ্ঞরা। ওয়াক্ফ সম্পত্তির খোঁজ নিয়ে সঠিক ব্যব্হার করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সচেতন ব্যক্তিবর্গ। এমন একটি অভিযোগ টেকনাফ পৌরসভা ইসলামাবাদ জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে।
এদিকে টেকনাফ পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের ইসলামাবাদ জামে মসজিদের অনূকুলে ওয়াক্ফ কৃত সম্পত্তি কথিত পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে গুরুত্বর অভিযাগ এনে সঠিক প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেছেন ওয়াক্ফ দাতা মৃত হোছন আলীর পুত্র আবদু শুক্কুর ।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বিগত ২৭/০৫/১৯৪৭ ইং সনে ৪৪৬ নং বন্দোবস্তী মামলা মূলে প্রাপ্ত মালিক, টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নতুন পল্লান পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত আফাজ উদ্দিনের পুত্র মৃত হোছন আলী উক্ত সম্পত্তির ০.১০ একর গত ০৭/০১/১৯৮৫ ইং তারিখে ৪২ নং রাহে লিল্লাহ ওয়াক্ফ মূলে মসজিদের জন্য দান করেন। উক্ত জমিতে ইসলামাবাদ জামে মসজিদ নির্মিত হয়। কিন্তু মসজিদের জন্য জমি ওয়াক্ফ মূলে দান করিলেও তথাকথিত মসজিদ পরিচালনা কমিটি দানকৃত ০.১০ জমিরস্থলে ০.১৩ একর এবং পুকুরে ০.১৪ একর জমি ২১৬০ নং সৃজিত বিএস খতিয়ান সৃজন করে। যা সম্পূর্ন ভুল ও বেআইনী। ওয়াক্ফ দাতা হোছন আলীর মৃত্যুর পর বিগত দিয়ারা জরিপে তথাকথিত মসজিদ পরিচালনা কমিটি সুকৌশলে ১৫৬৮ নং খতিয়ান মূলে ইসলামাবাদ শব্দ বাদ দিয়ে ধুমপ্রাংবিল জামে মসজিদ নাম ধারন করে মাদরাসা শব্দ সংযোজন করে ৫০৫ দাগে ০.১৪ একর ৬৪২ দাগে ০.১০ একর মোট ০.২৪ একর জমির ভুল রেকর্ড করে। এছাড়া মসজিদের জমি দানকারী ব্যক্তিদেরকে মসজিদ পরিচালনা কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার নিয়ম থাকলেও বর্তমানে তথাকথিত মসজিদ পরিচালনা কমিটি ওয়াক্ফদাতার কোন অলি ওয়ারিশগংকে কমিটিতে রাখেনি। এ ব্যাপরে অভিযোগকারী আবদু শুক্কুর এর প্রতিকার চেয়ে গেল ০৪/১০/২০২০ ইং তারিখ উপজেলা চেয়ারম্যান, মেয়র টেকনাফ পৌরসভা ও সহকারী কমিশনার ভুমি এর নিকট অভিযোগ পত্র প্রের করেছে।
টেকনাফ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ফিল্ড সুপার ভাইজার নুরুল ইসলাম জানান, এমন অভিযোগ খুবই গুরুত্বর অপরাধ। বিষয়টি আমি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অবহিত করেছি।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ