টেকনাফে র‌্যাফেল ড্রর নামে প্রতারণার ফাঁদ !

v.jpg

 টেকনাফে পবিত্র রমজান মাস সন্নিকটে হলেও র‌্যাফেল ড্রর নামে প্রতারণার ফাঁদ অব্যাহত থাকায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গতরাত পবিত্র শবে-বরাতের ইবাদত শেষে ভোরে নামাজের পর ঘুমিয়ে পড়ে। উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার অলি-গলিতে এসব র‌্যাফেল ড্রয়ের মাইকিংয়ে ইবাদত শেষে ঘুমে পড়াদের ঘুম ভেঙ্গে দেয়। অনেক ধর্মপ্রাণ মুসল্লী এই ধরনের ঘটনায় খুব প্রকাশ করেন। ভুক্তভোগী জনসাধারণ ও শিক্ষক সমাজের প্রতিনিধিরা জরুরী ভিত্তিতে র‌্যাফেল ড্রয়ের নামে প্রতারণার ফাঁদ বন্ধের দাবী জানিয়েছেন।

মানবাধিকার ও উন্নয়নকর্মী এইচএন. আমান জানান, র‌্যাফেল ড্রয়ের নামে উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা বেশী প্রতারিত হচ্ছেন। স্কুল-মাদ্রাসা পড়–য়া শিক্ষার্থীরা টিফিনের টাকায় কুপন ক্রয় করছেন। তিনি জরুরী ভিত্তিতে এসব লাকী কুপন বিক্রি বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের খারাংখালী এলাকার প্রসিদ্ধ ব্যবসায়ী হাফেজ সাঈদ আলম জানান,সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মাইক বাজিয়ে কুপন বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু বিক্রির বিপরীতে ক্রেতা সাধারণ পুরুস্কার প্রাপ্তিতে প্রতিনিয়ত ঠকছেন জানিয়ে এই ব্যবসায়ী অবৈধ কুপন বিক্রি বন্ধ করতে উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

মলকাবানু উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ইসমাঈল জানান, অনেক ছাত্র/ছাত্রী টিফিনের টাকায় কুপন কিনে প্রতারিত হচ্ছেন। এই প্রধান শিক্ষকও জরুরী ভিত্তিতে লাকী কুপনের নামে প্রতারণার ফাঁদ বন্ধের দাবী জানিয়েছেন।

সমাজ, ধর্ম ও নৈতিকতা বিরোধী অবৈধ এই সব কর্মকান্ড কিছুতেই চলতে পারেনা জানিয়ে টেকনাফ বড় মাদ্রাসার পরিচালক ও দৈনিক সাগরদেশ পত্রিকার প্রকাশক মুফতি কেফায়ত উল্লাহ শফিক অনতিবিলম্বে শিল্প ও বাণিজ্য মেলার নামে কুপন বিক্রিসহ অবৈধ জুয়া খেলা বন্ধের দাবী জানিয়েছেন।

পৌর বাস টার্মিনালে পরিচালিত শিল্প ও বাণিজ্য মেলার নামে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় র‌্যাফেল ড্রয়ের কুপন বিক্রি চলছে। “মায়ের দোয়া” নামের একটি প্রতিষ্ঠান পুরো উপজেলায় ইজিবাইক নিয়ে মাইকিং করে বিশ টাকা মূল্যের হাজার হাজার কুপন বিক্রি করছেন। মোটর বাইক, ইজি বাইক, গরু, ফ্রিজ, স্বর্ণসহ বিভিন্ন ধরণের লোভনীয় পুরস্কার এবং প্রতিদিন ড্র দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে এসব কুপন বিক্রি করছেন বলে লোকজন জানিয়েছেন। গ্রামে গঞ্জের সাধারণ মানুষ এবং উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েসহ পড়ুয়ারাও পুরস্কার লাভের আশায় একেক জনে একাধিক কুপন ক্রয় করছেন। অনেকে লোভে পড়ে প্রতিদিন কুপন ক্রয় করে প্রতারিতও হচ্ছেন। গত ৫ এপ্রিল টেকনাফ বাস টার্মিনালে প্রথমবারের মত আনুষ্ঠিকভাবে এই মেলার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের পর সপ্তাহ পর্যন্ত কোন ধরণের র‌্যাফেল ড্র বিক্রি করেননি আয়োজক কর্তৃপক্ষ। গত সপ্তাহ থেকে হঠাৎ ইজিবাইক দিয়ে পুরো উপজেলা জুড়ে সকাল-সন্ধ্যা র‌্যাফেল ড্র বিক্রি করা হচ্ছে। আয়োজকরা লোকসানে, তাই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে লাকী কুপন বিক্রির মত প্রতারণার ফাঁদ বসিয়েছেন বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক টেকনাফের ক্রীড়া সংগঠনের কর্তা ব্যক্তি জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রবিউল হাসান বলেন, র‌্যাফেল ড্রয়ের নামে প্রতারণার কোন ধরণের সুযোগ নেই। তিনি বিষয়টি তদন্ত স্বাপেক্ষে দ্রæত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। #

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।