টেকনাফে ২ লাখ ৪০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, আটক-১

টেকনাফে ২ লাখ ৪০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, আটক-১

টেকনাফে বিজিবি’র অভিযানে ২ আসামীসহ পৃথক অভিযানে ৭,২০,০০,০০০/- (সাত কোটি বিশ লক্ষ) টাকা
মূল্যমানের ২,৪০,০০০ (দুই লক্ষ চল্লিশ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার
১। টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) টেকনাফ সীমান্তের দায়িত্বভার গ্রহণের পর হতে মাদকদ্রব্য পাচার প্রতিরােধ, অবৈধ
অনুপ্রবেশ প্রতিহত, মানবপাচারসহ সীমান্তে সংঘটিত সকল প্রকার সীমান্ত অপরাধসমূহ প্রতিরােধকল্পে অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে
নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) মাদকের জিরাে টলারেন্স নীতি অবলম্বল করায় সাধারণ
জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত ০৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ রাতে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন
(২ বিজিনি) কর্তৃক পরিচালিত পৃথক দুইটি অভিযানে ০১ জন আসামীসহ ৭,২০,০০,০০০/- (সাত কোটি বিশ লক্ষ) টাকা
মূল্যমানের ২,৪০,০০০ (দুই লক্ষ চল্লিশ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। উক্ত ঘটনায় সম্পর্কে নিয়ে
আলােকপাত করা হলাে।
গােপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় যে, ৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ টেকনাফ উপজেলার শাহপরীরীপ এলাকা
নিয়ে মিয়ানমার হতে ইয়াবার ০১ টি বড় চালান বাংলাদেশে পাচার হতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ
ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর ব্যাটালিয়ন সদরের একটি বিশেষ টহুলনল দ্রুত বর্ণিত এলাকায় গমন করে। আনুমানিক
১৯০০ ঘটিকায় টহলদল বর্ণিত স্থানে পৌছে মােঃ নুরুল আফসার (২২), পিতা-আবুল কালাম, গ্রাম-জালিয়াপাড়া,
থানা-টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজার নামের একজন সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তিকে
জিজ্ঞাসাবাদকালীন বর্ণিত ব্যক্তি জানায় যে, সে গত ৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ নাফ নদী হতে মৎস্য আহরণের জন্য
নদীতে করে এবং মিয়ানমার হতে ১ টি নৌকা হতে ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়ে ভাঙ্গাপাড়া এলাকায়
বসবাসকারী মােঃ আমির হােসেন (৩৫) এর বসতবাড়ীতে রেখে আসে। উল্লেখ্য, বর্ণিত টহলাললটি তাকে সঙ্গে নিয়ে
দ্রত বর্ণিত বসতবাড়ীতে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে ০১টি ইয়াবা ভর্তি বাশ উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত ব্যাগের
তিতর হতে ৪,২০,০০,০০০/- (চার কোটি বিশ লক্ষ) টাকা মূল্যমানের ১,৪০,০০০ (এক লক্ষ চল্লিশ হাজার) পিস
ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। উল্লেখ্য, বণিত বাড়ীত্তে হাজির না থাকায় বাড়ীর মালিককে আটক করা সম্ভব হয়নি।
গােপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় যে, ০৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ রাতে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি)
নাফ নদী পার হয় ইয়াবার একটি বড় চালন বাংলাদেশে পাচার হতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে খারাংখালী
এর অধীনস্থ খারাংখালী বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকার বিআরএম-১৫ হতে আনুমানিক ৫০০ মিটার দক্ষিণ দিক হতে
বিপি’র একটি টহলদল দ্রুত বর্ণিত এলাকায় গমন করতঃ গােপন কৌশলগত অবস্থান গ্রহণ করে। আনুমানিক ২৩২০
ঘটিকায় ২-৩ জন দুষ্কৃতিকারী ব্যক্তিকে মিয়ানমার হতে হস্তচালিত কাঠের নৌকা যােগে নাফ নদী পার হয়ে বিআরএম১৫ হতে ৫০০ মিটার দক্ষিণ দিক দিয়ে বেড়ীবাঁধের পূর্ব পার্শ্বে আসতে দেখে সন্দেহ হওয়ায় টহলদলটি তাদেরকে
চ্যালেঞ্জ ও ধাওয়া করে। চোরাকারবারীরা দূর হতে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি অনুধাবন করতে পেরে নৌকা হতে
লাফ দিয়ে নেমে অন্ধকারের সুযােগ নিয়ে দ্রুত দৌড়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহলদল বর্ণিত স্থানে
পৌছে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে নদীর কিনারা হতে ৩,০০,০০,০০০/- (তিন কোটি) টাকা মূল্যমানের
১,০০,০০০ (এক লক্ষ) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করতে সক্ষম হয়। ইয়াবা পাচারকারীদের আটকের নিমিত্তে বর্ণিত
এলাকা গু নদীর তীরসহ পার্শ্ববর্তী স্থানে পরবর্তী ০০৩০ ঘটিকা পর্যন্ত (০৫ এপ্রিল ২০২১) অভিযান পরিচালনা করা
হলেও কোন পাচারকারী কিংবা তাদের সহযােগীকে আটক করা সম্ভব হয়নি। উক্ত স্থানে অন্য কোন অসামরিক ব্যক্তিকে
পাওয়া যায়নি বিধায় ইয়াবা কারবারীদের সনাক্ত করাও সম্ভব হয়নি। তবে তাদেরকে সনাক্ত করার জন্য অত্র
ব্যাটালিয়নের গােয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
মন্তব্য। শাহপরীরদ্বীপ হতে আটককৃত আসামীকে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ
মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম ঢলমান রয়েছে। এছাড়াও উদ্ধারকৃত মালিকবিহীন ইয়াবাগুলাে বর্তমানে ব্যাটালিয়ন সদরের
ষ্টোরে জমা রাখা হবে এবং প্রয়ােজনীয় আইনী কার্যক্রম গ্রহণ পরবর্তীতে তা উকতিন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের
প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

স্বাক্ষরিত ।
লেঃ কর্ণেল মােহাম্মদ ফয়সল হাসান খান, বিজিবিএম, পিএসসি।
অধিনায়ক, টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি)

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ