টেকনাফ শামলাপুরে হতে যাচ্ছে অনাকাঙ্খিত একটি বাল্য বিয়ে


নিজস্ব প্রতিবেদক॥
আজ টেকনাফ শামলাপুরে অতি ধুমধামের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একটি অনাকাঙ্খিত বাল্য বিয়ে। জানা যায় শামলাপুর বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর নয়াপাড় গ্রামের প্রবাসি হাজী মনছুর আলমের মেয়ে শামলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী নাজমা আক্তার (লাকী) (১৪) এর সাথে উখিয়া জালিয়াপালং ইউনিয়নের মনখালী গ্রামের হাজী নুরুল বশরের পুত্র নুরুল আমিনের শুভ বিবাহ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সরেজমিনে তদন্ত করে দেখা গেছে গতরাত ০২ জুলাই কনের বাড়িতে মেহেদী অনুষ্ঠানের আয়োজন চলছে। এ ব্যাপারে শামলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাষ্টার এম.এ মনজুর এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান “ বিয়েটির ব্যাপারে আমি ঘোর বিরুধী। বিয়েটি বন্ধ করতে আমি টেকনাফ-উখিয়া উপজেলা নির্বাহি অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ ও স্থানীয় ইউপি সদস্যকে অবহিত করেছি। বয়স অপূর্ণ ছাড়াও মেয়েটির শারীরিক গঠনের দিক বিবেচনায় মেয়েটি বিয়ের উপযুক্ত হয়নি। জেএসসির সার্টিফিকেট অনুযায়ী তার জন্ম ২২/০৩/২০০৩ ইংরেজী।” এছাড়া নবম শ্রেণি থেকে একটি মেয়ের বিয়ে হওয়া মানে তার ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাওয়া। এ বিয়েটি সচেতন জনমহল কখনো মেনে নিতে পারেনা। সরকার বাল্য বিয়ের ব্যাপারে দন্ডবিধি আরোপ করলেও তাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করছে কনে বর পক্ষ। বাল্য বিয়ে বন্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে শিক্ষা বঞ্চিত ও শারীরিক অবক্ষয়ের দিকে ধাবিত হয়ে পড়বে এলাকার অনেক মেয়ে। তাই বাল্য বিয়েটি বন্ধ করতে এলাকার সচেতন জনমহল ও শিক্ষাপ্রেমিরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।