টেকনাফ স্থলবন্দরে অক্টোবর মাসে বেশী রাজস্ব আদায়

ফরহাদ আমিন,টেকনাফ::: টেকনাফ স্থলবন্দরে অক্টোবর মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী রাজস্ব আদায় হয়েছে। তবে নানা সমস্যার পরও মিয়ানমার থেকে পণ্য আমদানী হওয়ায় এ মাসে বেশি রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয় বলে জানায় শুল্ক বিভাগ।

শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানায়, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের অক্টোবর মাসে ২০৫ টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে ৯ কোটি ২২ লাখ ২০ হাজার ৫৭৩ টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। ফলে মিয়ানমার থেকে ২৬ কোটি ৪৩ লাখ ২৮ হাজার ৩৬৬ টাকার পণ্য আমদানি করা হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃক এ মাসে ৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকার মাসিক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪ কোটি ৬৪ লাখ ২০ হাজার ৫৭৩ টাকার রাজস্ব বেশি আদায় করা সম্ভব হয়েছে।

অপরদিকে ৩৯টি বিল অব এক্সপোর্টের মাধ্যমে মিয়ানমারে ১ কোটি ৭৬ লাখ ৭৯ হাজার ৩১৮ টাকার মালামাল রপ্তানি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

এছাড়া মিয়ানমার থেকে ২৩০টি গরু, ৫২১টি মহিষ আমদানী করে ৩ লাখ ৭৫ হাজার ৫শ টাকার রাজস্ব আদায় করা হয় বলে জানায়।

এদিকে গত মাসের ৯ অক্টোবর ভোর রাতে মিয়ানমার বর্ডার র্গাড বিজিপির কয়েকটি ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দু দেশের সীমান্ত বন্ধ থাকে। এমনকি কোন ধরনের বাণিজ্যিক পণ্য আমদানি-রপ্তানি ছিলনা। এদিকে হঠাৎ করে সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীদের মাঝে অস্বস্তি বিরাজ করে। এভাবে যেতে না যেতে এক সাপ্তাহের মাথায় গত ১৫ অক্টোবর টেকনাফ স্থলবন্দরে মিয়ানমার থেকে শুটকি, আচার ও কম্বল আমদানি শুরু হয়। এর পর বেশ কিছু শুটকি আমদানি করা হয়েছে। যার ফলে মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয় বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

তবে গত মাসে মিয়ানমারের ঘটনা, আশুরা, দূর্গা পূজা ও প্রবারণা পূর্ণিমার বন্ধ থাকার পরও মিয়ানমার পণ্য আমদানি কিছুটা স্বাভাবিক থাকায় রাজস্ব আদায়ে তেমন প্রভাব পড়েনি।

টেকনাফ স্থলবন্দর শুল্ক কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মন্নান জানান, অক্টোবর মাসে মিয়ানমারে সমস্যার কারণে কয়েকদিন পণ্য আমদানি হয়নি। তাছাড়া আশুরা, দূর্গা পূজা ও প্রবারণা পূর্ণিমারও বন্ধ ছিল। এ সব কিছুর পরও মিয়ানমার থেকে পণ্য আমদানি হওয়ায় মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে দ্বিগুন রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয়েছে। দেশীয় পণ্য রপ্তানিও অনেকটা স্বাভাবিক ছিল। সীমান্ত বাণিজ্য ব্যবসাকে স্বাভাবিক ও গতিশীল রাখতে দু দেশের প্রতিনিধিদল কাজ করছে। তবে বাণিজ্য ব্যবসায়ীদের আমদানি-রপ্তানি বৃদ্ধিতে আরো ভূমিকা রাখতে হবে বলে জানান তিনি।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।