তারুণ্যের আইডল ও সফল নারী উদ্যোক্তা কোহিনুর কাউন্সিলর

তারুণ্যের আইডল ও সফল নারী উদ্যোক্তা কোহিনুর কাউন্সিলর

নিজস্ব প্রতিবেদক
তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ,তাদের ভালো কাজ দ্বারা পাল্টে দিতে পারে সাড়া পৃথিবী। তেমনই এক তরুনী ও সফল নারী উদ্যোক্তা,
টেকনাফ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, যিনি জাতির জনকের আদর্শ কে বুকে ধারন করেই জীবনের প্রতিটি পদে এগিয়ে চলছেন।
পাশাপাশি তিনি টেকনাফ পৌরসভার ১,২,৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মহিলা কাউন্সিলর ও নবনির্বাচিত মহিলা কাউন্সিলর।
অত্যন্ত মেধাবী, সাংগঠনিক দক্ষতায় অনন্য সাধারণ, আচার ব্যবহারে নম্র, বিনয়ী, অধিকার আদায়ে প্রতিবাদী তেজদীপ্ত চেহারা নিয়ে তারুণ্যের আইডল হিসেবে তরুণ সমাজের কাছে সুপরিচিত একজন অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব।
টেকনাফের একমাত্র বেসরকারী মেরিন সিটি হাসাপাতালের চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। যার পরিচালনায় মানবতার এক মূর্ত প্রতিক মানুষের মাঝে স্থান করে নিয়েছেন।
পাশাপাশি দল মত নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষ তাঁর কর্ম তৎপরতা, সহিষ্ণুতা, বিনয়ে মুগ্ধ।
বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। করোনার ক্রান্তিকালে অনেক নেতা কিংবা জনদরদীকে দেখেছি মানবতার ফেরিওয়ালা হিসাবে কাজ কারেন, কিন্তু কোহিনুর কাউন্সিলর এ কাজটি শুরু করেছেন অনেক আগেই।
জনস্বাস্থ্য রক্ষার্থে সচেতনতামূলক সভা ইত্যাদি কার্য্যকলাপ ব্যস্ত সময় পার করেন তিনি।
একদিকে হাসাপাতাল, অন্যদিকে টেকনাফ পৌরসভা ও অপরদিকে উপজেলা মহিলালীগের সভাপতির দায়িত্বে দলীয় প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে হয় তার।
এছাড়া কমিউনিটি পুলিশিং বিট পুলিশিং টিমের সক্রীয় সদস্য হয়ে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে।
এসব কাজ করছেন কোন ধরনের প্রচার প্রচারনা ছাড়াই।
অসহায়, দরিদ্র মানুষজনকে বিনামূল্য হাসপাতালে চিকিৎসা, ঔষধ খাবার কিনে দেওয়া হয়। করোনাকালে নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়েও কখনো আত্নীয় স্বজন, সরকারী সাহায্য কিংবা এমপি বদির সহায়তায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।
একজন সংগ্রামী নারী হয়ে সকল কাজ সমানতালে করে যাচ্ছেন।
গেল টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসলেও ষড়যন্ত্রের বেড়াজাল থেকে দ্বিতীয়বারের মতো বিপুল ভোটে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।
এছাড়া তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কার্যালয়ে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তোলে অভিযোগ দায়ের করা হলে দুদক কর্মকর্তাগণ দীর্ঘ তদন্ত শেষে তাকে অব্যাহতি দেন।

নিজস্ব প্রতিবেদক
তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ,তাদের ভালো কাজ দ্বারা পাল্টে দিতে পারে সাড়া পৃথিবী। তেমনই এক তরুনী ও সফল নারী উদ্যোক্তা,
টেকনাফ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, যিনি জাতির জনকের আদর্শ কে বুকে ধারন করেই জীবনের প্রতিটি পদে এগিয়ে চলছেন।
পাশাপাশি তিনি টেকনাফ পৌরসভার ১,২,৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মহিলা কাউন্সিলর ও নবনির্বাচিত মহিলা কাউন্সিলর।
অত্যন্ত মেধাবী, সাংগঠনিক দক্ষতায় অনন্য সাধারণ, আচার ব্যবহারে নম্র, বিনয়ী, অধিকার আদায়ে প্রতিবাদী তেজদীপ্ত চেহারা নিয়ে তারুণ্যের আইডল হিসেবে তরুণ সমাজের কাছে সুপরিচিত একজন অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব।
টেকনাফের একমাত্র বেসরকারী মেরিন সিটি হাসাপাতালের চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। যার পরিচালনায় মানবতার এক মূর্ত প্রতিক মানুষের মাঝে স্থান করে নিয়েছেন।
পাশাপাশি দল মত নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষ তাঁর কর্ম তৎপরতা, সহিষ্ণুতা, বিনয়ে মুগ্ধ।
বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। করোনার ক্রান্তিকালে অনেক নেতা কিংবা জনদরদীকে দেখেছি মানবতার ফেরিওয়ালা হিসাবে কাজ কারেন, কিন্তু কোহিনুর কাউন্সিলর এ কাজটি শুরু করেছেন অনেক আগেই।
জনস্বাস্থ্য রক্ষার্থে সচেতনতামূলক সভা ইত্যাদি কার্য্যকলাপ ব্যস্ত সময় পার করেন তিনি।
একদিকে হাসাপাতাল, অন্যদিকে টেকনাফ পৌরসভা ও অপরদিকে উপজেলা মহিলালীগের সভাপতির দায়িত্বে দলীয় প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে হয় তার।
এছাড়া কমিউনিটি পুলিশিং বিট পুলিশিং টিমের সক্রীয় সদস্য হয়ে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে।
এসব কাজ করছেন কোন ধরনের প্রচার প্রচারনা ছাড়াই।
অসহায়, দরিদ্র মানুষজনকে বিনামূল্য হাসপাতালে চিকিৎসা, ঔষধ খাবার কিনে দেওয়া হয়। করোনাকালে নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়েও কখনো আত্নীয় স্বজন, সরকারী সাহায্য কিংবা এমপি বদির সহায়তায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।
একজন সংগ্রামী নারী হয়ে সকল কাজ সমানতালে করে যাচ্ছেন।
গেল টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসলেও ষড়যন্ত্রের বেড়াজাল থেকে দ্বিতীয়বারের মতো বিপুল ভোটে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।
এছাড়া তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কার্যালয়ে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তোলে অভিযোগ দায়ের করা হলে দুদক কর্মকর্তাগণ দীর্ঘ তদন্ত শেষে তাকে অব্যাহতি দেন

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ