নতুন ভবিষ্যতের পথে দেশের চলচ্চিত্র: তথ্যমন্ত্রী

image_dtn-0
অপসংস্কৃতি, সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ ও মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে চলচ্চিত্র বড় হাতিয়ার হতে পারে বলে  মত দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

তিনি বলেন, নতুন ভবিষ্যতের পথে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র। আমরা এগিয়ে চলেছি। এখন এ শিল্পকে এগিয়ে নিতে এফডিসিকে নতুন করে সাজানো হবে।

তথ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস-২০১৪ এর দিনব্যাপী অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে আরও বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তিতে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। চলচ্চিত্র মাধ্যমের শিল্পী, কলাকুশলীদের প্রশিক্ষিত করার জন্য শিগগিরই ফিল্ম ইনস্টিটিউট শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে বলেও জানান তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, খুব অল্প সময়ের মধ্যেই গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটে ডিপ্লোমা ও পোস্ট গ্রাজুয়েট কোর্স চালু করা হবে বলে।

চলচ্চিত্র দিবস উপলক্ষে সকাল থেকেই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) মুখরিত হয়ে ওঠে নবীন প্রবীণ তারকা শিল্পীদের পদচারণায়। সকালে পায়রা উড়িয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এ সময়ে দিবস উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন মন্ত্রী। এর পরপরই অনুষ্ঠিত হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা।

দিনব্যাপী আয়োজনে ছিল চলচ্চিত্র মেলা, রেড কার্পেটে তারকাদের আনাগোনা, টক শো, দেশের উল্লেখযোগ্য ছায়াছবির স্থিরচিত্র প্রদর্শনী, চলচ্চিত্র নির্মাণ বিষয়ক প্রজেকশন, সেমিনার, চলচ্চিত্রে ব্যবহৃত পুরানো যন্ত্রাংশের প্রদর্শনী, সংগীত পরিবেশনা সহ ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য জহির রায়হান কালার ল্যাব প্রজেকশন মিলনায়তনে বিনামূল্যে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী।

সন্ধ্যায় শুরু হয় দেশের স্বনামধন্য শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে অংশ নেন মৌসুমী-ওমর সানী, ফেরদৌস-নিপুণ, মারুফ-তমা মির্জা, আরেফিন শুভ-আঁচল, অনন্ত-বর্ষা, জায়েদ খান ও মম। সংগীত পরিবেশনা করেন ফেরদৌস ওয়াহিদ, হাবিব, এসআই টুটুল, তপন চৌধুরী, রবি চৌধুরী, আঁখি আলমগীর, আলম আরা মিনু, আতিক হাসান, পড়শী, রুমানা ও আগুন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।