নারী উদ্যোক্তা মেলা শেষ হচ্ছে কাল

“নকশী কাথা বাঙালীর ঐতিহ্য। বাঙালীর সংস্কৃতির একটি অংশ। গ্রাম বাংলার নারীরা কাজের অবসরে নকশি কাঁথা সেলাই করত। একটি নকশি কাঁথা তৈরি করতে কখনো কখনো ১-২ বছরও লেগে যেত। সে কাঁথাতে মিশে থাকতো নারীর সুখ-দুঃখের কাহিনী। কখনো সংসারের চিত্র, কখনো গ্রামের সূর্যাস্ত, পাখি, বাড়ির উঠোন, মেঠো পথ এসব আঁকা হত নকশী কাঁথায়। এখন সেসব হারাতে বসেছে। বর্তমানে অনেক ছেলেমেয়েরাতো চেনেইনা যে নকশি কাঁথা কি। আধুনিকতায় হারাতে বসেছে গ্রাম্য ঐতিহ্য”। কথাগুলো বলছিলেন কক্সবাজার সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক বেগম ফায়জুননেছা।
গ্রাম্য ঐতিহ্য, দেশীয় পণ্যের প্রচারে কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরীর শহীদ দৌলত ময়দানে অনুষ্ঠিত হচ্ছে নারী উদ্যোক্তাদের পণ্যের মেলা। মেলায় ৩০টি দেশীয় পণ্যের স্টট খোলা হয়েছে এবং প্রত্যেকটি স্টলই সাজানো হয়েছে দেশীয় পণ্যে। তবে আয়োজকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে এসব দেশীয় পণ্যের প্রতি নতুন প্রজন্মের পরিচিতি কম।
মেলার অন্যতম আকর্ষণ নকশি কাঁথা। রাজশাহী থেকে আসা স্টল ‘আমাদের নকশী কাঁথা’ এর প্রোপাই সূত্র :দৈনিক কক্সবাজার

 

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।