নারী ‘মাদক বিক্রেতার’ গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

গত এক মাসে মাদকবিরোধী অভিযানে দেড়শ জনের মতো নিহত হলেও কোনো নারীর মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম।

নিহত রেহেনা আক্তারের (৩৮) বাড়ি ময়মনসিংহ নগরীর সানকিপাড়া এলাকায়।

রেহেনার নামে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানায় সাতটি মাদকের মামলা রয়েছে বলে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি আশিকুর রহমানের ভাষ্য।

স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে রবিবার ভোরে সদর উপজেলার গন্দ্রপা এলাকা থেকে রেহেনোর লাশ তারা উদ্ধার করেন। পরে ময়নাতদন্তের জন্য তা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

“মাদকের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে দুই পক্ষের সংঘর্ষে তার মৃত্যু হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।”

ওসি বলেন, নগরীর একটি সিনেমা হলের পেছনে ‘মাদকের ব্যবসা করতেন’ রেহেনা। গত ৩১ মে ওই এলাকায় পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালালে রেহেনা পালিয়ে যান।

পরে সেখান থেকে রেহানার তার ভাই বিল্লাল, পার্থ, রুবেল ও ছোট বোন শরীফাসহ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ।

চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের শুরুতে অভিযানের সময় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গুলিবিদ্ধ হয়ে ‘মাদক বিক্রেতাদের’ নিহত হওয়ার খবর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিচ্ছিল।

তা নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রশ্ন তোলার পর এখন ‘মাদক বিক্রেতাদের নিজেদের গোলাগুলিতে’ নিহতের কথাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বলা হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।