পেকুয়ায় দীর্ঘদিনেও ইউপি সদস্যের প্রজেক্ট লুঠ ও জবর দখল ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ!

  • aboadu
    পেকুয়া,প্রতিনিধি
    পেকুয়ায় দীর্ঘদিনেও ইউপি সদস্যের প্রজেক্ট লুঠ ও জবরদখলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। ফলে, ঘটনায় জড়িতরা বেপরোয়া হয়ে বিরোধীয় স্বত্বে ইউপি সদস্যের রোপিত পাঁকা ধান রাতের আঁধারে চুরি করে নেয়া ছাড়াও ভুক্তভুগী ইউপি সদস্যকে করেছে এলাকাছাড়া। এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। জানা যায়, গত কয়েক মাস পূর্বে প্রকাশ্য দিবালোকে ফিল্মি ষ্টাইলে সশস্ত্র ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা তান্ডব ও লুঠপাট চালিয়ে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবুনিয়া ৬নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত মেম্বার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ বাদশা মিয়া এমইউপি’র পৈত্রিক ওয়ারিশ সূত্রের রিজার্ভ দখলীয় প্রজেক্ট লুঠ ও জবর দখল করে নেয় একই ইউনিয়নের দোকানপাড়া এলাকার প্রভাবশালী পরিবারের লোকজন। এনিয়ে পত্র পত্রিকায় সচিত্র সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ ও থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার জের ধরে থানায় দু’পক্ষের মধ্যে সমঝোতা বৈঠক হলেও বিরোধ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান স্থিতবস্থা বজায় রাখতে পুলিশ নির্দেশ দিলে ঘটনায় জড়িতরা দেয় গা-ঢাকা। পরে, ভুক্তভুগী ইউপি সদস্য তার দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় প্রজেক্ট জমি আয়ত্বে নিয়ে তাতে রোপন করে বোরো আবাদ। সম্প্রতি কিছু দিনের জন্য গা-ঢাকা দেয়া দখলবাজ ও লুঠপাটকারীরা ফের এলাকায় ফিরে ভুক্তভুগী ইউপি সদস্য আ’লীগ নেতা বাদশা মিয়া ও তার পরিবারকে অব্যাহত চাঁপ ও হুমকি দিয়ে করে এলাকাছাড়া। অভিযোগ উঠেছে, গত কিছু দিন আগে জারুলবুনিয়া দক্ষিনজুম ভিলিজারপাড়া এলাকার কবির আহমদের পুত্র সৌদি প্রবাসী হুন্ডি ব্যবসায়ী ও দাদনখোর আবু তালেব নামের এক প্রভাবশালী বাড়ি ফিরে ভাড়াটিয়া লোক লাগিয়ে ইউপি সদস্য আ’লীগ নেতা বাদশা মিয়ার দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় প্রজেক্ট জমিতে রোপিত পাঁকা ধান চুরি করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভুগী ইউপি সদস্য। তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে আরো অভিযোগ করে জানান, তার প্রজেক্টে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের তান্ডব, লুঠপাট ও জবর দখলের ঘটনার প্রতিকার চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পরও পুলিশ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে নেয়নি কোন আইনী পদক্ষেপ। এনিয়ে তদন্ত কর্মকর্তা এ.এস.আই খালেদ মোশারফের চাহিদা অনুযায়ী খরচাপাতিও দেওয়া হয়েছিল। এখন খবর পেয়েছি সৌদি প্রবাস ফেরত মোঃ আবু তালেবের নেতৃত্বেই তার রোপিত পাঁকা ধানগুলো রাতের আঁধারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সৌদি প্রবাস ফেরত আবু তালেবের কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্যের প্রজেক্ট স্বত্বটি তার খরিদা বিধায় মালিক হিসাবে তার ফসল তিনি ঘরে তুলেছেন বলে জানান। তদন্ত কর্মকর্তা এ.এস.আই খালেদ মোশারফের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পাওয়া মাত্রই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।