পৌর নির্বাচন: টেকনাফে সম্ভাব্য প্রার্থীদের আগাম প্রস্তুতি


টেকনাফ(কক্সবাজার) প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন গত সোমবার (২ নভেম্বর) ইসি সচিবালয়ের একসভা শেষে, সিইসি কেএম নুরুল হুদা আগামী ডিসেম্বর মাসের শেষের দিক হতে কয়েক ধাপে পৌরসভা নির্বাচন করার ঘোষনা দেন। এই খবরে টেকনাফ পৌরসভার সম্ভাব্য কাউন্সিলর ও মেয়র প্রার্থীদের আগাম প্রস্তুতির পূর্ব আভাস পাওয়া যাচ্ছে। অনেক সম্ভাব্য প্রার্থীরা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জানান, গত নির্বাচনে ইয়াবার কালো টাকার জোরে অনেকেই কাউন্সিল নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু নির্বাচন কালীন সময়ে জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন করতে পারে নি। বরং তারা নিজেরাই বাাঁচানোর জন্য এলাকা ছেড়ে পালিয়েছিলেন। আবার অনেকেই জেল থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে এলাকায় এসেছেন। স্থানীয় পৌরবাসী জানান, আগামী নির্বাচনে ওই সমস্ত প্রার্থীদেরকে সচেতন ভোটাররা বয়কট করবে এবং যোগ্য সৎ প্রার্থীদেরকে নির্বাচিত করবে। সুত্র জানায়, এবারে আসন্ন নির্বাচনে প্রার্থীদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশাসন ও গোয়েন্দা সংস্থা কড়া নজর দারী রাখবে। গত ২০০০ সালে টেকনাফ পৌরসভা স্থাপিত হয়। বর্তমান সরকার এই পৌরসভাকে আধুনিক পৌরসভা করার জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। সে অনুপাতে উন্নয়ন মূলক কাজও চলছে। সম্প্রতি টেকনাফ পৌরসভায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ব্যায়ে ড্রেন ও গ্রামীন সড়ক নির্মান ও পুনঃসংস্কার কাজ চলছে। এই আধুনিক ও পর্যটন পৌরসভাকে বাস্তবে রুপ দিতে যেমন সৎ ও যোগ্য মেয়র এবং কাউন্সিলরের প্রয়োজন। কিন্তু টেকনাফ পৌরসভার নাগরিকদের তা ভাগ্যে জুটেনা বলে স্থানীয় সচেতন নাগরিকগণ জানান। যুগে যুগে সংঘাত ভাঘভাটোয়ারা বিভিন্ন ঘাতপ্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে পেীরসভার কার্যক্রম চলে আসছিল। পক্ষান্তরে গত দুয়েকবার পৌরসভার কার্যক্রম এগিয়ে গেলেও কিন্তু ওয়ার্ড কাউন্সিলরের অনুপস্থিতিতে তা বাস্তবায়নে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। স্থানীয় সচেতন ভোটারগণ জানান, আগামী নির্বাচনে আমরা প্রতিটি প্রার্থীদের বেলায় চুলচেরা বিশ্লেষন করে নিজেদের মূল্যবান ভোট প্রয়োগ করবো। এদিকে সম্ভাব্য প্রার্থীরা জানান, আমরা টেকনাফ পৌরসভাকে সরকারের নেওয়া পরিকল্পনা অনুযায়ী বাস্তবে রুপ দিতে প্রস্তুত, তবে এলাকার সচেতন ভোটার যদি অতীতের মত ভুল না করে সৎ, যোগ্য প্রার্থীদেরকে নির্বাচিত করে, তাহলে তাদের স্বপন্ন বাস্তবায়ন হবে। এদিকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের একটি কথা ভোটাররা কি যোগ্য প্রার্থী বেচে নিবেন ? না কালো টাকার দিকে অগ্রসর হবেন। এটাই মূল প্রশ্ন। আশা করা যাচ্ছে, আগামী নির্বাচনে পৌরসভার সচেতন ভোটারগণ অতীতের মত ভুল না করে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীদেরকে নির্বাচিত করবেন এটাই হচ্ছে সচেতন মহলের প্রত্যাশা। ####

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ