মন্দিরের জমি দখল করলেন চেয়ারম্যান

Manda-Picture-1

 
নওগাঁর মান্দা উপজেলায় একটি মন্দিরের জমি দখল করে পাকাঘর নির্মাণ করছেন স্থানীয় এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।

সিংগী বাজারে শিবকালি মন্দিরের সম্পত্তিতে এ স্থাপনা নির্মাণ করছেন কাঁশোপাড়া ইউপির চেয়ারম্যান ইয়াদ আলী মন্ডল।

মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি পীতাম্বর কবিরাজ জানান, সিংগী বাজারের ৭৪ শতক দেবোত্তর সম্পত্তির উপর শিবকালি মন্দিরটি অবস্থিত। ১৯৭২ সালে এই দেবোত্তর সম্পত্তি হাটের নামে রেকর্ডভুক্ত করে নেয়া হয়।

রেকর্ড সংশোধনের জন্য জেলা প্রশাসক নওগাঁ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মান্দা ও ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা গোটগাড়ীকে বিবাদী করে একটি মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

এই দেবোত্তর সম্পত্তির উপর অবস্থিত বট গাছের গোড়ায় একটি কালী মূর্তি রেখে পূজা-অর্চনা করে থাকেন এলাকার কয়েক গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন।

মন্দির কমিটির সভাপতি আরো জানান, হঠাৎ করে মন্দিরের জায়গা দখল করে ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াদ আলী মন্ডল সেখানে পাকাঘর নির্মাণ করছেন।

মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক লিটন চন্দ্র সাহা ও কোষাধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র সন্যাসী জানান, প্রতিবছর জ্যৈষ্ঠ মাসে এই মন্দিরে বলিসহ বড় আকারে পূজার আয়োজন হয়ে থাকে। চেয়ারম্যান জায়গা দখল করে নেয়ায় এবছর পূজা-অর্চনা আর করতে পারবেন না বলে জানান তারা।

সিংগী হাট কমিটির সভাপতি সাইদুর রহমান, স্থানীয় আব্দুল কুদ্দুস, সোহান মন্ডল জানান, চেয়ারম্যান ইয়াদ আলী মন্ডল ও তার চাচাত ভাই খয়বর আলী মন্দিরের চারপাশের জায়গা দখল করে কালী মূর্তি ভেতরে রেখেই কয়েকটি পাকাঘরের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

কালীমূর্তির পেছনে তৈরি করা হচ্ছে পায়খানা। এতে পূজার কাজ চালিয়ে নেয়ার মতো আর কোনো জায়গা অবশিষ্ট নেই বলে জানান তারা।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান ইয়াদ আলী মন্ডল ঘর নির্মাণের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অতীতে দেবোত্তর সম্পত্তি হলেও বর্তমানে এটি হাটের জায়গা। মন্দিরের সম্পত্তিতে নয়, হাটের সরকারি জায়গায় ব্যক্তিগত চেম্বার ও ল্যাট্রিন তৈরি করছেন তিনি।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।