রামুতে ফুলে উঠেছে কবর

mail.google.ceeeeom_14সোয়েব সাঈদ:: ১০ বছর আগেই কবরটি ফুলে উঠতে শুরু করে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ফুলে উঠার মাত্রা ছিলো আরো বেশী। বর্তমান প্রায় পাঁচ ফুট পর্যন্ত ফুলে উঁচু হয়ে গেছে পুরনো এ কবরটি। আলোচিত এ ঘটনাটি ঘটেছে রামু উপজেলার ঐতিহ্যবাহি ফকিরা বাজার জামে মসজিদের পরিত্যক্ত জমিতে। রহস্যেঘেরা এ কবর নিয়ে পুরো রামুজুড়ে চলছে হৈ চৈ। প্রতিদিন হাজার-হাজার মানুষ ফুলে উঠা মাটির স্তুপটি দেখার জন্য ওই এলাকায় ভীড় জমাচ্ছেন। রামু ফকিরা বাজার জামে মসজিদের খতিব মৌলানা আমান উল্লাহ বিষয়টি স্বীকার করেছেন। ২২ বছর ধরে তিনি এ মসজিদে ইমামতি করছেন। তিনি জানিয়েছেন, প্রায় ৫০ বছরের বেশী সময় আগে এ মসজিদে একজন মানুষ ঘুমাতেন। একসময় ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত ওই অজ্ঞাত ব্যক্তিটি একদিন ভোররাতে মসজিদেই মারা যান। পরে সেই ব্যক্তিকে মসজিদের পূর্ব-দক্ষিন পাশের জমিতে কবর দেয়া হয়। এ ঘটনার পর প্রায় ১০ বছর আগে সেইস্থানে একটি মাদার গাছ কাটা হয়। সেই থেকে ওই স্থানে ফুলে উঠতে শুরু করে। ওই স্থানটিতে একসময় ঝোপঝাড় ও লতাপাতা গজিয়ে উঠে। সম্প্রতি এসব ঝোপঝাড় পরিস্কার করার পর মসজিদের লোকজন দেখতে পান ওই স্থানে থাকা কবরটি প্রায় পাঁচ ফুট পর্যন্ত ফুলে উঁচু হয়ে গেছে। যা দেখার জন্য প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ছুটে আসছেন। মসজিদের খতিব মৌলানা আমান উল্লাহ আরো জানিয়েছেন, কেন এভাবে স্থানটি ফুলে উঠেছে তা নিয়ে কিছু জানেননা। ওই স্থানটির পাশেই রয়েছে মোজাহের মিস্ত্রির বাড়ি। স্থানীয় লোকজনও এ বিষয়টি নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছে। অনেকের ধারনা ওই স্থানে কবরস্থ হওয়া ব্যক্তিটি ধার্মিক ছিলেন। তাই আল্লাহপাক তার প্রিয় বান্দার জন্য আলৌকিক নিদর্শণ স্থাপন করেছেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।