সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড ; অবৈধভাবে বিদেশযাত্রা নয়


অবৈধভাবে বিদেশে যাত্রা করে অসংখ্য মানুষ মারা যাচ্ছে, নিখোঁজ হচ্ছে অনেকে, নির্যাতিত অনেক মানুষ ক্রীতদাস হিসেবে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে। স্বজনের অবিরাম আর্তনাদে চোখের জলও শুকিয়ে যাচ্ছে। অবৈধভাবে এ যাওয়া বন্ধ করতে ২০১৩ সালে বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন হয়েছে।২০১২ সালে হয়েছে মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন। এসব আইনে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ-। কিন্তু কঠোর আইন, জীবনের ঝুঁকি, অনিশ্চয়তা- কোনো কিছুই যেন অবৈধভাবে বিদেশ যাওয়া বন্ধ করতে পারছে না।

মানবপাচারের ক্ষেত্রে তিনটি বিষয় জড়িত- এক. বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে ভাগ্য বদলানো। দুই. মানবপাচারকারীদের মিথ্যা লোভনীয় কর্মসংস্থানের প্রতারণা। তিন. বিপৎসংকুল এ পথ সম্পর্কে জনসচেতনতার অভাব। তাই সরকারের কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে ব্যাপকভাবে সচেতন করতে হবে- এটা সবারই দায়িত্ব।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।