সাগরে ৩১ জুলাই পর্যন্ত মাছ ধরা নিষিদ্ধ

 

ঢাকা: বঙ্গোপসাগরে আগামী ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন বাণিজ্যিক ট্রলার দিয়ে মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মো. ছায়েদুল হক এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘সামুদ্রিক মাছের প্রজনন ও সর্বোচ্চ সংরক্ষণের স্বার্থে এই ৬৫ দিন সাগরে বাণিজ্যিকভাবে মাছ ও চিংড়ি আহরণ বন্ধ থাকবে।’
ছায়েদুল হক বলেন, বিশ্বের সমুদ্র উপকূলবর্তী দেশগুলোতে সামুদ্রিক মাছের প্রজনন মৌসুমে দুই থেকে তিন মাস মাছ ধরা বন্ধ থাকে। ভারতেও প্রজনন মৌসুমে তিন মাস মাছ ধরা বন্ধ থাকে। মূলতঃ মাছ সংরক্ষণের স্বার্থে দুই মাস মাছ ধরা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ট্রলার দিয়ে মাছে শিকারের কারণে গত ৫ বছরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে- প্রতি বছর জুন থেকে আগস্ট মাসে সাদা মাছের আহরণ তুলনামূলক কম হয় যা প্রতি বছরই হ্রাস পাচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে সাদা মাছের প্রজননকাল বিবেচনায় রেখে এই নির্দিষ্ট সময় মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হলো।

এ সময় মন্ত্রী আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, দেশে যেভাবে বিভিন্ন নদ-নদীতে জাটকা শিকার হচ্ছে তাতে আগামীতে ইলিশ পাওয়াই দুষ্কর হয়ে যাবে। যদি এখনই কোনো ব্যবস্থা না নেয়া হয় তো আর ইলিশই পাওয়া যাবে না।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।