উখিয়া প্রেসক্লাবের শপথ অনুষ্ঠানে- নির্বাহী কর্মকর্তা

আবদুর রহিম সেলিম
সাংবাদিকরা দেশ ও জাতীর কল্যাণ বয়ে নিয়ে আসতে পারে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে একটি সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে সাংবাদিকদের বিকল্প নেই। তেমনি ভাবে সীমান্ত উপজেলায় চোরাচালান, মাদক পাচার, মানবপাচার সহ বিভিন্ন ধর্তব্য অপরাধসমূহ তাদের লেখনির মাধ্যমে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করেন একমাত্র সাংবাদিকরাই।
২৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার উখিয়া উপজেলা সদরে অবস্থিত উখিয়া প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিত কর্মকর্তাদের শপথ অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
সাংবাদিক এস এম আনোয়ার এর সভাপতিত্বে ও নুরুল হক খান এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শপথ অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উখিয়া প্রেসক্লাবের দাতা সদস্য ও উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উখিয়া থানা অফিসার ইন-চার্জ মোঃ হাবিবুর রহমান, পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম. গফুর উদ্দিন চৌধুরী।
এ সময় নির্বাচিত সভাপতি সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি আমানুল হক বাবুল, সাধারণ সম্পাদক আভাষ শর্মা বিশু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান সুমন, অর্থ সম্পাদক কমরুদ্দিন মুকুল, দপ্তর ও ক্রীড়া সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সাহিত্য, সাংস্কৃতি ও প্রকাশনা সম্পাদক সুলতান মাহমুদ চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য যথাক্রমে ফারুক আহমদ, হুমায়ুন কবির জুশান, হানিফ আজাদ ও মিজান-উর-রশিদ মিজানকে শপথ বাক্য পাঠ করান প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক নুরুল আমিন ছিদ্দিক, সাংবাদিক মোসলেহ উদ্দিন, ওবাইদুল হক আবু, আবদুর রহিম সেলিম, শিশু বড়–য়া, রফিক মাহামুদ, মাহমুদুল হক বাবুল, শফিউল্লাহ শাহীন, এম.এস রানা ও বিশিষ্ট সামাজিক, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আবুল কাশেম প্রমূখ।
#

উখিয়ায় ব্র্যাকের উদ্যোগে দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত
আবদুর রহিম সেলিম, উখিয়া তারিখ ঃ ২৯/১২/২০১৫ইং
উখিয়ায় জনসম্পৃক্তায় সমাজিক ও আচরগত পরিবর্তন প্রকল্প অ্যাডভোকেসি ফর সোশাল চেইঞ্জ ও (সি ফর ডি) ইউনিসেফ বাংলাদেশের সহযোগীতায় শিশু বিয়ে, শিশু শ্রম ও শিশুর শারীরিক ও মানসিক শাস্তি বন্ধের লক্ষ্যে এক কর্মশালা গত ২৮ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১০টায় হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন মিন্টুর সভাপতিত্বে এ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উখিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রাইহানুল ইসলাম মিয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্র্যাক সি ফর ডি প্রোগ্রামের উখিয়া উপজেলা সিনিয়র ম্যানেজার সুকেশ কুমার সরকার। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্র্র্যাক কক্সবাজার জেলা ব্যাবস্থাপক রোনান্ড চাকমা, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মৃদুল কুমার আশ্চর্য। ব্র্যাকের রাজাপালং ইউনিয়নের যোগাযোগ কর্মী মোঃ জাফর আলমের পরিচালনায় এ কর্মশালায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জিতেন্দ্র লাল বড়–য়া, মোঃ ইসলাম মেম্বার, মোহাম্মদ হোসাইন সিকদার, ছব্বির আহামদ, মুসা মিয়া, মেহের আলী, আবদুল আজিজ, পল্লী চিকিৎসক আশিষ ও পল্লী চিকিৎসক মকবুল আহমদ প্রমুখ। সার্বিক সহযোগিতা করেন হলদিয়াপালং ইউনিয়নের যোগাযোগ কর্মী গিয়াস উদ্দিন, কাজল রেখা, ঝর্ণা রাণী দে, রাজাপালং ইউনিয়নের যোগাযোগ কর্মী নুরুল আবছার, জালিয়াপালং ইউনিয়নের যোগাযোগ কর্মী মোহাম্মদ রফিক, পালংখালী ইউনিয়নের যোগাযোগ কর্মী রফিক উদ্দিন। দিনব্যাপী কর্মশালায় হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য, শিক্ষক, মসজিদের ইমাম, হিন্দু বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি, সমাজের বিভিন্ন স্তরের গন্যমান্য ব্যক্তি, মহিলা প্রতিনিধিসহ প্রায় ১০০ জন অংশগ্রহন করেন।
#

উখিয়ার তুলাতলী স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে পাহাড়সম অভিযোগ
আবদুর রহিম সেলিম, উখিয়া তারিখ ঃ ২৯/১২/২০১৫ইং
উখিয়ায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে নানা অনিয়ম-দূর্নীতি, ছাত্রী ও শিশু কেলেংকারীর ঘটনা এখন নিত্য নৈমিত্তিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এক শ্রেণীর অসাধু শিক্ষক-শিক্ষিকা এসব অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা শিক্ষা প্রশাসনের তদারকি ও পর্যবেক্ষণের অভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এসব ঘটনা জন্ম নিচ্ছে বলে সচেতন মহলের অভিমত। বিশেষ করে উখিয়া উপজেলার অন্তর্গত পূর্ব ভালুকিয়া তুলাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমান এসব অপরাধের নেপথ্যে জড়িত রয়েছে। বিদ্যালয়ের বিভিন্ন অর্থ বছরের স্লিপের টাকা, শিক্ষা উপকরণ ও অনুদানের ভুরি ভুরি অর্থ দিনের পর দিন আত্মসাত করে আসলেও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির কতিপয় নেতৃবৃন্দদের হাতে নিয়ে পূর্ব ভালুকিয়া তুলাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ালেখার মান নিম্নমুখী সহ শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন সময় উপজেলা শিক্ষা অফিসে কাজের বাহানা দিয়ে বেশির ভাগ সময় বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকে প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহমান। সম্প্রতি স্কুল সংলগ্ন আনন্দ স্কুলের জনৈকা ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব, অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলা সহ ওই প্রধান শিক্ষক নিজেই একাধিক নারী কেলেংকারির মত জঘন্য ঘটনায় জড়িত। এতে করে স্কুলের অভিভাবক ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে প্রধান শিক্ষকের এ ধরনের কু-কর্মের ঘটনায় অতিষ্ঠ হয়ে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। শুধু তাই নয়, টয়লেট বাবদ সরকারের বরাদ্দকৃত ১৫ হাজার টাকা সংস্কারের নামে পুরো টাকাই নিজ পকেটস্থ করে। প্রধান শিক্ষকের এসব অনিয়ম দুর্নীতি ও নারী কেলেংকারীর বিরুদ্ধে এলাকার শিক্ষানুরাগীরা প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি রক্ষার স্বার্থে দুর্নীতিবাজ ও চরিত্রহীন প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ করেছেন। তারা প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমানের শাস্তিমূলক অপসারণের দাবী জানান। বিদ্যালয়ের দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব মৌলভী মোহাম্মদ আলী মাষ্টার এর ছেলে মোহাম্মদ জোবাইর এ সংক্রান্ত ঘটনায় সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ দেওয়ার পরও কর্তৃপক্ষের কোন সাড়া মিলেনি। তিনি হতাশ হয়ে বিদ্যালয়ের অন্যান্য অভিভাবকদের নিয়ে পড়ালেখার সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সব মহলে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
এলাকার অভিভাবক আলী আহমদ জানান, তুলাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমান বিদ্যালয়টিতে যোগদানের পর থেকে অনিয়ম-দুর্নীতির বাসা বেঁধেছে। বিদ্যালয়ের তহবিল তছরূপ, অর্থ আত্মসাত সহ দিনের পর দিন স্কুল ফাঁকি দিয়ে আসছে। বিভিন্ন পরীক্ষায় ছাত্র-ছাত্রীরা ভাল ফলাফল অর্জন করতে না পারায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অপরাপর সদস্যরা এ ঘটনার জন্য প্রধান শিক্ষককে দায়ী করেন।
উখিয়া উপজেলা উপ-সহকারী শিক্ষা অফিসার মোজাফ্ফর আহমদ জানান, এ বিদ্যালয়ের অনেক অভিযোগ রয়েছে। যা জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসের অধীনে তদন্তাধীন রয়েছে।

আবদুর রহিম সেলিম
উখিয়া, কক্সবাজার।
মোবাইল ঃ ০১৮৪০০০৩৮৩৬/
০১৭৩৪৪৩৭৬৭২

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।