হোয়াইক্যং উনছিপ্রাংয়ের মালয়েশিয়া প্রবাসীর মেয়েকে নিয়ে উধাও মঈন উদ্দিন

ফরহাদ আমিন,টেকনাফ:::
টেকনাফ হোয়াইক্যং উনছিপ্রাংয়ের মালয়েশিয়া প্রবাসীর মেয়ে হাফছা বেগম নামক ৮ম শ্রেনীর এক মাদ্রাসা ছাত্রী কে নিয়ে উধাও হয়ে গেছে একই এলাকার মালয়েশিয়া ফেরত হাফেজ মঈন উদ্দিন ওরফে মইন্না।। জানা যায়, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনছিপ্রাং এলাকার মৃত মৌলভী ছৈয়দ আলমের ছেলে মঈন উদ্দিন মালয়েশিয়া থেকে সম্প্রতি বাংলাদেশ আসে গত ৩ মাস আগে। তার আরো ৩ ভাই মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছে। ভাইদের মধ্যে মঈন উদ্দিন ৪র্থ নম্বরে। তার আরো ২ভাই অবিবাহিত রয়েছে। ইতিমধ্যে উক্ত মঈন উদ্দিন বউ পাগল হয়ে রাস্তায় অনেক স্কুল,মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার নানা ঘটনার জম্ম দিয়েছে। সর্বশেষ উনছিপ্রাংয়ের এক প্রভাবশালীর ৭ম শ্রেনীতে পড়–য়া মেয়েকে জোর করে বিয়ের পিড়িতে বসাতে নানা দৌড়ঝাপ দেয়। অবশেষে গত ৬ ডিসেম্বর দিন দুপুরে উনছিপ্রাং এলাকার মালয়েশিয়া প্রবাসী মোঃ কলিমুল্লাহর মেয়ে হাফছা বেগম (১৭ কে খারাংখালী দারুত তওহিদ বালিকা মাদ্রাসা থেকে ফেরার পথে মঈন উদ্দিন ও তার চিহ্নিত কয়েকজন সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে হাফছাকে জোর করে নিয়ে দ্রুত সিএনজিতে উঠে পড়ে। এরপর টেকনাফ হয়ে বাহারছড়া-কক্সবাজার সড়ক পথে কক্সবাজার চম্পট দেয়। হাফছা বেগম (১৭) খারাংখালী দারুত তাওহিদ বালিকা মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী।
এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীর মতে, ছোট ভাইয়ের মেয়েকে বিয়ে না দেয়ায় অবশেষে মঈন উদ্দিন প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে বড় ভাই কলিমুল্লাহর মাদ্রাসায় পড়–য়া ছাত্রীকে অপরণ করে নিয়ে যায়। বর্তমানে এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা উভয়ের হদিস নেই বলে জানান এলাকাবাসী। সর্বশেষ পাওয়া খবরে জানা যায়, অপহৃত হাফছার মাতা শমসুন্নাহার মেয়ে কে উদ্ধারে পুলিশি ব্যবস্থা নিতে মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, হাফছা মাদ্রাসায় আসেনি। তবে হাফছা তার চাচাতো ভাইয়ের সাথে চলে গেছে বলে শুনেছি। অপহৃতা হাফছা হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনছিপ্রাং ৩ নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত মেম্বার আব্দুল বাছেতের বড় ভাইয়ের মেয়ে বলে জানা গেছে।
এব্যাপারে মেয়ের চাচা রুহুল আমিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমার ভাতিজিকে মঈন উদ্দিনসহ কয়েকজন ছেলে মাদ্রাসা থেকে ফেরার কোথায় অজ্ঞাতস্থানে অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে তিনি স্বীকার করেন। তাদের সম্ভাব্য স্থানসহ আতœীয়স্বজনের বাড়িতে অনেক খোঁজাখুজিঁ করে না পেয়ে হতাশা নিয়ে বাড়িতে ফিরে এসেছি। তিনি আরও জানান, এটা পারিবারিক বিষয় পারিবারিকভাবে সমস্যার সমাধান করা হবে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।