টেকনাফে দুই মাদক কারবারী নিহত, আগ্নেয়াস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার


কক্সসবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদককারবারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশের এসআই মশিউর রহমান, কনস্টেবল অভিজিৎ দাশ ও এমরান হোসেন আহত হয়।
নিহতরা হলেন- টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভী বাজার এলাকার মৃত সোলতান আহমদ ওরফে চামড়া বাদশাহর ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২০) ও হোয়াইক্যং ইউনিয়নের পশ্চিম মহেশখালীয়া পাড়ার মৃত হাজী আলী আহমদের ছেলে আব্দুল জলিল ওরফে গুরা পুতুইক্কা (৩০)।
পুলিশ জানায়- ৭ জুলাই (মঙ্গলবার) ভোররাতে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের একটি দল উপজেলার হোয়াইক্যং এলাকায় অবৈধ অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার অভিযানে যায়, এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অবৈধ অস্ত্রধারী এবং মাদক কারবারী সিন্ডিকেটের সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করলে পুলিশও আতœক্ষার্থে বেশ কিছুক্ষণ থেমে থেমে পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে হামলাকারীরা পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। এসময় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়।
পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ৫ হাজার ইয়াবা, ২টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র ও ৬ রাউন্ড তাজা কার্তুজসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ২ জনকে উদ্ধার করে দ্রুত চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসার পর গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারীদের আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যায়। তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
এব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান- এঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। নিহত সাদ্দামের বিরুদ্ধে প্রায় অর্ধ ডজন মামলা রয়েছে। তারা পেশাদার অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারী এবং ঘটনাস্থল হতে অস্ত্র, ইয়াবা ও বুলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ