টেকনাফে ৫ বছর ব্যবসা করলেও শেষ হবে না মজুদকৃত ইয়াবা

টেকনাফ উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা, চোরাচালান কমিটির সভায় বক্তারা বলেছেন-সিনহা হত্যার ঘটনার পর থেকে টেকনাফে ইয়াবা ব্যবসা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাই মাদক বিরোধী অভিযানে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে।


সভায় জেলা পরিষদ সদস্য শফিক মিয়া বলেছেন- টেকনাফ সীমান্তে মাদক ব্যবসায়ীরা যেভাবে ইয়াবা মজুদ করেছে, তা আগামী ৫ বছর ব্যবসা করলেও শেষ হবে না। তাই তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া জরুরী। উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম বলেন- দিন যত যাচ্ছে, টেকনাফের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি তত অবনতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। অতিসত্বর থানায় নতুন ওসি’র মাধ্যমে বর্তমান পরিস্থিতি উন্নতি করতে হবে। ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ইউএনও সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- টেকনাফ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আলম।

অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জেলা পরিষদ সদস্য মোঃ শফিক মিয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহেরা আক্তার মিলি, উপজেলা আ’লীগের সিঃ সহ-সভাপতি জহির হোসেন, বাহারছড়ার ইউপি চেয়ারম্যান মৌঃ আজিজ উদ্দিন, হ্নীলা ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলী, সাবরাং ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান শরীফ হোসেন, সদরের ইউপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবু ছৈয়দ, সেন্টমার্টিন ইউপি’র নুর আহমদ, শাহপরীরদ্বীপ সাংগঠনিক আ’লীগের সভাপতি সোনা আলী, উপজেলা কমিনিউটি পুলিশিং এর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কালাম, কোস্টগার্ডসহ সরকারী কর্মকর্তারা অংশ নেন।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ